মেইন ম্যেনু

৬ ঘণ্টা বন্ধের পর দুই রুটে ফেরি চলাচল শুরু

ঘন কুয়াশার কারণে প্রায় ৬ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি এবং পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের ফেরি চলাচল আবার শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি এবং পৌনে ৯টা থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের ফেরি চলাচল শুরু করা হয়।

এর আগে মঙ্গলবার ভোর রাত ৩টা থেকে ঘন কুয়াশার কারণে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি এবং সাড়ে ৩টা থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ।

বিআইডব্লিউটিসির সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) জসীম উদ্দিন, ঘন কুয়াশার কারণে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি ফেরি চলাচল তারা বন্ধ করে দেন। এসময় উভয় ঘাটে দুইশত পণ্যবাহী ট্রাকসহ তিন শতাধিক যানবাহন আটকা পড়ে।

তিনি বলেন, পুরো এলাকা কুয়াশার চাঁদরে এতটাই ঢাকা পড়েছে যে এ সময় ফেরী চালকেরা নৌরুটের এক ফুট দূরেও দিক-মার্কা ও সিগন্যাল বীকন বাতি নির্ণয় করতে পারছিল না। তাই দুর্ঘটনা এড়াতে এ সময় ফেরী চলাচল বন্ধ রাখতে বাধ্য হয় ফেরী চালকরা।

তবে সকাল সকাল সাড়ে ৯টায় ঘন কুয়াশা কেটে গেলে ফেরি চলাচল শুরু করা হয়।

বিআইডব্লিউটিসি পাটুরিয়া সেক্টরের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মোহাম্মদ সালাউদ্দিন জানান, ঘন কুয়াশা কেটে যাবার পর সকাল ৯টা থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরি চলাচল চালু করা হয়েছে।

রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরিঘাট শাখা বাণিজ্য বিভাগের ব্যবস্থাপক খোরশেদ আলম জানান, ঘন কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে যাওয়ায় নৌপথ না দেখার কারণে ভোর সাড়ে ৩টা থেকে ৪ টা, ভোর সাড়ে ৪টা থেকে সাড়ে ৫টা এবং ভোর পৌনে ৬টা থেকে পৌনে ৯টা পর্যন্ত তিন বার ফেরি চলাচল বন্ধ ছিলো।

ফেরি সেক্টর সুত্র জানায়, দীর্ঘ সময় ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার কারণে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় ছোট বড় মিলে তিন শতাধিক যানবাহন আটকা পড়ে।

পাটুরিয়া ফেরিঘাট শাখা নৌপুলিশের সহকারী উপ পরিদর্শক মামুন হোসেন জানান, ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় বাস, ট্রাক ও ছোট গাড়ি মিলে চার শতাধিক যানবাহন আটকা পড়ে।