মেইন ম্যেনু

৮ আইএস নেতা নিহত, অক্ষত বাগদাদি

ইরাকের পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় এক বিমান হামলায় জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের আট উর্ধ্বতন নেতা নিহত হয়েছেন। তবে নিহতদের মধ্যে দলের প্রধান নেতা আবু বকর আল বাগদাদি নেই বলেই মনে হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দা এবং হাসপাতাল সূত্রের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে রয়টার্স ।

হামলা সম্পর্কে রোববার এক বিবৃতিতে বাগদাদ জানিয়েছে, আইএস নেতা বাগদাদিকে বহনকারী একটি গাড়িবহরে এবং আইএস নেতাদের এক বৈঠক লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে ইরাকি বিমান বাহিনী। ওই হামলায় আইএস নেতা বাগদাদি নিহত বা আহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইরাক। যদিও এ দাবির সপক্ষে নির্ভরযোগ্য কোনো প্রমাণ হাজির করতে পারেনি তারা।

ইরাকি সামরিক বাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে,‘ইরাকি বিমান বাহিনী দায়েশ(আইএস) নেতা আবু বকর আল বাগদাদিকে বহনকারী গাড়িবহরে হামলা চালিয়েছে। তিনি কারবালায় এক বৈঠকে যোগ দিতে যাওয়ার সময় ওই হামলা চালান হয়েছিল।’ বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, আইএস নেতাদের বৈঠকেও হামলা চালান হয়েছে। হামলায় ওই গোষ্ঠীর বেশ কয়েকজন নেতা নিহত ও আহত হয়েছেন। তবে হতাহতদের মধ্যে বাগদাদি রয়েছেন কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

স্থানীয় বাসিন্দা এবং হাসপাতাল সূত্রগুলো বলছে, ইরাকি বিমান থেকে দুটি বাড়িতে হামলা চালান হয়েছিল। ওই হামলায় আইএসের আট উর্ধ্বতন নেতা প্রাণ হারিয়েছেন।

তবে হামলায় বাগদাদি অক্ষত রয়েছেন বলেই ধারণা করা হচ্ছে। বাগদাদ থেকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মার্কিন সামরিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ওই ইরাকি বিমান হামলায় বাগদাদি নিহত বা আহত হয়েছেন এমন কোনো লক্ষণ যুক্তরাষ্ট্র খুঁজে পায়নি।

ইরাকে আইএসের বিরুদ্ধে মার্কিন বিমান হামলা শুরুর পর থেকে একাধিকবার বাগদাদির নিহত হওয়ার খবর প্রকাশিত হলেও তা পরে মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে।

তার নিহত হওয়ার ইরাকি দাবিকে গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছে জিহাদিরাও। এক টুইটার বার্তায় আইএস আরো দাবি করেছে, বাগদাদির শহীদ হলেও দলটির কর্মকাণ্ডে কোনো প্রভাব ফেলবে না। কেননা ‘আমরা এক নেতাকে হারালেও আমাদের দলে তার মত হাজার বাগদাদি বিরাজ করছে।’