মেইন ম্যেনু

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টি

৯৬ রানে অলআউট বাংলাদেশ

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাপ ডুপ্লেসিস। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৪৮ রান সংগ্রহ করে সফরকারীরা। ১৪৯ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৮.৫ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৯৬ রানের বেশি করতে পারেনি স্বাগতিকরা। ফলে ৫২ রানের দারুণ এক জয় পেয়েছে প্রোটিয়াসরা।

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। কাইল অ্যাবোটের করা প্রথম ওভারের শেষ বলে আউট হন তামিম (৫)। এরপর রাবাদার করা দ্বিতীয় ওভারের পঞ্চম বলে ডুমিনির হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন সৌম্য সরকার (৭)। দলীয় ৫০ রানে ডুমিনির বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মিলারের হাতে ধরা পরেন মুশফিক (১৭)। ডুমিনির করা দশম ওভারের দ্বিতীয় বলে কুইনটন ডি ককের হাতে ধরা পরেন সাব্বির রহমান। নতুন ব্যাটসম্যান নাসির হোসেনও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি।

দলীয় ৫৭ রানে অ্যারোন ফাঙ্গিসোর বলে আউট হন নাসির (১)। লিটন দাসকে সঙ্গে নিয়ে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন সাকিব। কিন্তু ৭১ রানের মাথায় সাকিবও (২৬) সাজঘরে ফেরেন। দলীয় ৯৪ রানে রান আউট হন সোহাগ গাজী। একই রানে ফিরে যান লিটন দাসও (২২)। দলীয় ৯৬ রানে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন মুস্তাফিজুর রহমান।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নামলে শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকা শিবিরে আঘাত হানেন আরাফাত সানী ও নাসির হোসেন। ফিরিয়ে দেন সবচেয়ে বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্স ও ডি কককে। এরপর জেপি ডুমিনি ও ডুপ্লেসিস মিলে ৪৬ রানের জুটি গড়েন। এই জুটি ভাঙেন আরাফাত সানী। এরপর সাকিব ফেরান ডেভিড মিলারকে (১)। পঞ্চম উইকেট জুটিতে অধিনায়ক ফাপ ডুপ্লেসিস (৭৯) ও রিলে রুশো (৩১) মিলে ৫৮ রান তুলে অপরাজিত থাকেন।

দলীয় ২ রানের মাথায় আরাফাত সানীর বলে এবি ডি ভিলিয়ার্স (২) আউট হন। ইনিংসের প্রথম ওভারের শেষ বলে খেলতে গিয়ে পয়েন্টে দাঁড়িয়ে থাকা মাশরাফির তালুবন্দি হন ডি ভিলিয়ার্স। নাসিরের করা চতুর্থ ওভারের শেষ বলে লিটন দাসের হাতে ধরা পরেন কুইনটন ডি কক (১২)। আরাফাত সানীর করা ১২তম ওভারের দ্বিতীয় বলে নাসিরের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন ডুমিনি (১৮)। আর ১৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে সাকিবের শিকারে পরিণত হন ডেভিড মিলার (১)।

আজ বাংলাদেশ দলের সেরা একাদশে নেই রনি তালুকদার, জুবায়ের হোসেন লিখন ও রুবেল হোসেন। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে অনেক দিন পর জাতীয় দলে ফেরেন সোহাগ গাজী। আজ তিনিও সেরা একাদশে আছেন। আছেন লিটন দাসও। আজ তার টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হতে যাচ্ছে। এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা দলে নেই ক্রিস মরিস, হেন্ড্রিকস ও ইদি লি।

বাংলাদেশ দল : তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, লিটন দাস, নাসির হোসেন, মাশরাফি মুর্তজা (অধিনায়ক), আরাফাত সানী, সোহাগ গাজী ও মুস্তাফিজুর রহমান।

দক্ষিণ আফ্রিকা : কুইনটন ডি কক, রিলে রুশো, এবি ডি ভিলিয়ার্স, ফাফ ডুপ্লেসিস (অধিনায়ক), জেপি ডুমিনি, ডেভিড মিলার, ওয়েন পার্নেল, অ্যারোন ফাঙ্গিসো, কাগিসো রাবাদা, ডেভিড ওয়াইস ও কাইল অ্যাবোট।

এই সিরিজের পাওয়ার স্পন্সর দেশের স্বনামধন্য ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স, অটোমোবাইলস ও হোম অ্যাপ্লায়েন্স প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন।