মেইন ম্যেনু

‘‌স্ত্রী বদল’ করতে গিয়ে আটক শিল্পপতির ছেলে

২০০১ সালে আব্বাস–মুস্তান পরিচালিত কারিনা কাপুর ও অক্ষয় কুমারের ছবি ‘‌অজনবী’‌–র মূল বিষয় ছিল ‘‌স্ত্রী বদল’‌। এই বিষয়কে কেন্দ্র করেই পুরো ছবিটি তৈরি হয়েছিল। সিনেমার বিষয় বাস্তব রুপ নিল ভারতের ওড়িশাতে।

ওড়িশার ভুবনেশ্বর শহরে এই স্ত্রী বদল করার অভিযোগে এক শিল্পপতির ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত ভুবনেশ্বরের নয়াগড় চিনি কারখানার মালিক ত্রৈলক্যনাথ মিশ্রের ছেলে সব্যসাচী মিশ্র। ধৃতকে তার খারভেল নগরের বাড়ি থেকে মহিলা পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

ছ’‌মাস আগে সব্যসাচীর স্ত্রী তার স্বামীর বিরুদ্ধে মহিলা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন। তার অভিযোগ অনুযায়ী, তাকে শ্বশুড়বাড়ির লোক দীর্ঘদিন ধরে পণের জন্য অত্যাচার করছেন এবং তার স্বামী জোর করে তাকে ‘‌স্ত্রী বদলে’‌ অংশ নিতে বলছেন। বিয়ের পর সব্যসাচী তার স্ত্রীকে নিয়ে বিদেশে চলে যান। যেখানে জোর করে তাকে স্ত্রী বদলের মতন নোংরা বিষয়ে যুক্ত হতে বলেন।

স্বামীর আবদার পূরণ না করায় তাকে সব্যসাচী ও তার পরিবার হেনস্থা করতে শুরু করেন। পুলিশের কাছে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য ওই মহিলাকে সব্যসাচীর বাড়ির লোক ক্রমাগত হুমকি দিতে থাকে। তাকে ও তার ছেলেকে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয়। সব্যসাচীর স্ত্রীর অভিযোগে এ সব কিছুই উল্লেখ রয়েছে।

গ্রেপ্তারের ভয়ে সব্যসাচীর পরিবার আদালত থেকে অর্ন্তবর্তীকালিন জামিন নিয়ে রাখেন। কিন্তু জামিনের মেয়াদ শেষ হতেই পুলিশ পরিবারের নামে ‘‌লুক আউট’‌ নোটিশ জারি করে। সব্যসাচীর খারভেল নগর বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। যদিও শিল্পপতি তাদের ছেলের বৌয়ের ওপর অত্যাচারের কথা অস্বীকার করেছেন। ধৃত সব্যসাচীও তার দোষ পুলিশের কাছে স্বীকার করেননি।