মেইন ম্যেনু

চাইল্ড হেল্পলাইন উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী :

অনলাইনে হবে শিশু আদালতের কার্যক্রম

শিশু নির্যাতন রোধে চাইল্ড হেল্পলাইন ১০৯৮ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই হেল্পলাইনসহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করেন তিনি।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শিশু আদালতের বিচার কার্যক্রম অনলাইনে করার পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, এটি করা সম্ভব হলে বাচ্চাদের ভোগান্তি ও ভয় কমবে। তাদের আদালতে আনা-নেয়ার ঝামেলা থাকবে না। মামলা করতে শিশুরা ভয় পাবে না।

শেখ হাসিনা বলেন, একটা শিশুও তো আদালতে এসে মামলা করতে পারবে না। সেজন্য তাদের অনলাইনে মামলা করা ও বিচারের সুযোগ করে দিতে হবে।

চাইল্ড হেল্পলাইন উদ্বোধন করে তিনি বলেন, এই হেল্পলাইন শিশু সুরক্ষায় মহৎ উদ্যোগ। আমি এর সফলতা কামনা করি। সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়সহ যারা এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন, তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। বিশেষ করে ইউনিসেফকে ধন্যবাদ। তারা আমাদের শিশুদের সুরক্ষায় দীর্ঘদিন কাজ করে যাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই হেল্পলাইনের ফলে শিশু নির্যাতন ও শিশু অপরাধ কমবে। শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত হবে।

তবে যারা এই হেল্পলাইন ব্যবহার করে হয়রানির জন্য মিথ্যা তথ্য দেবে, তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও হুশিয়ারি দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে ফরিপুর ও রাজবাড়ী জেলার সেইফ হোম থেকে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন জেলা প্রশাসক এবং সেইফ হোমের কয়েকজন শিশুরা।

এ সময় রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার আলেয়া বেগম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তার সঙ্গে যারা খারাপ ব্যবহার করেছে,তাদের বিচার দাবি করেন।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিশ্চয় বিচার হবে। তার আগে তোমাকে তো প্রতিষ্ঠিত হতে হবে। নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে। প্রধানমন্ত্রী এই শিশুকে পড়াশুনার পরামর্শ দেন।

আলেয়া বেগম ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তার বাবার সঙ্গেও কথা বলেন। বাবাকে সেইফ হোম থেকে তাকে নিয়ে যাওয়ার আকুতি জানায়।

সুস্থ হলে নিয়ে যাবেন বলে বাবা উত্তর দেন। এ কথোপথন সরাসরি দেখেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, মানুষের মধ্যে সুপ্রবৃত্তি থাকে, কুপ্রবৃত্তিও থাকে।এজন্য বাবা-মাকে শিশুদের বিষয়ে সচেতন হতে হবে। সবার সচেতনতা খুব প্রয়োজন।