মেইন ম্যেনু

অবশেষে সেই স্টোকসকে জরিমানা

stokes_angry_icc_29161_1477837891

ক্রিকেট ভদ্রলোকের খেলা সেটা যেন ভুলতে বসছিলেন ইংল্যান্ডের সহ-অধিনায়ক বেন স্টোকস। বাংলাদেশ সফরে এসে একটু বেশি বেশিই করছেন এই ইংলিশ অলরাউন্ডার।

সর্বশেষ দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিন সকালে ফিল্ড আম্পায়ারের অনুরোধ এবং নির্দেশনা উপেক্ষা করে বার বার ক্রিজে থাকা সাব্বির রহমানের সঙ্গে বাদানুবাদে লিপ্ত হয়েছেন স্টোকস।

একপর্যায়ে বিষয়টি ইংলিশ অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুকের নজরে আনেন দুই আম্পায়ার। এরপরও স্টোকসের আচরণে কোনো পরিবর্তন আসেনি।

ফলে খেলোয়াড়দের আচরণবিধি ভঙ্গ করায় স্টোকসের ম্যাচ ফি’র ১৫ শতাংশ জরিমানা করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল আইসিসি। একই সঙ্গে ইংলিশ সহ-অধিনায়কের ডিসিপ্লিনারি রেকর্ডে একটি ‘ডিমেরিট পয়েন্ট’ যোগ হয়।

রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে আইসিসি স্টোকসকে জরিমানা করার এই ঘোষণা দেয়।

আচরণবিধি ভঙ্গের অপরাধে আইসিসি শাস্তির নতুন যে নিয়ম চালু করেছে তাতে বলা হয়েছে, কোনো ক্রিকেটার শৃংখলা ভঙ্গ করলে ‘ডিমেরিট পয়েন্ট’ দেয়া হয়।

দুই বছরের মধ্যে কোনো ক্রিকেটার ৪টি ডিমেরিট পেলে ওই ক্রিকেটারের নামে ২টি নিষেধাজ্ঞা পয়েন্ট যোগ হবে। আর ২টি নিষেধাজ্ঞা পয়েন্ট পেলে পরবর্তী ১টি টেস্ট অথবা ২টি ওয়ানডে অথবা ২টি টি২০ ম্যাচে নিষিদ্ধ হবেন ওই ক্রিকেটার।

দুই ফিল্ড আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা ও এস রভি এবং থার্ড আম্পায়ার ক্রিস গ্যাফানি এই অভিযোগ আনেন। ম্যাচ রেফারি রঞ্জন মাদুগাল এই শাস্তির প্রস্তাব করেন। স্টোকস নিজে দোষ স্বীকার করে নেয়ায় আনুষ্ঠানিক শুনানির প্রয়োজন হয়নি।

এর আগে মিরপুর স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে অভব্য আচরণ করে সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন স্টোকস।

ম্যাচ শেষে দু’দেশের খেলোয়াড়রা যখন করমর্দন করছিলেন, তখন ইংল্যান্ডের খেলোয়াড় জনি বেয়ারস্টো’র দিকে বাংলাদেশী ওপেনার তামিম ইকবাল হাত বাড়ালেও তিনি তাতে সাড়া দেননি।

জনি বেয়ারস্টোর এমন আচরণে তামিম ইকবাল তার দিকে এগিয়ে যান এবং কিছু বোঝানোর চেষ্টাকালে তার (বেয়ারস্টোর) পিঠে হাত রাখেন।

আর এতেই তেঁতে ওঠেন বেয়ারস্টো। এ সময় তার সতীর্থ বেন স্টোকস তামিমকে ধাক্কা দেন। ওই ওসময় তাকে তামিমের দিকে আঙ্গুল তুলেও কথা বলতে দেখা যায়।

এমনকি টেস্টের আগে প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশের সেঞ্চুরিয়ান আবদুল মজিদের সঙ্গে ম্যাচ শেষে হাত মেলাননি বেন স্টোকস।