মেইন ম্যেনু

আপনার কবজি ভাঁজ করলে এই শিরাটি কি দেখা যায়? জেনে নিন কী এর অর্থ?

হাতের তালু উপর দিকে রেখে আপনার বুড়ো আঙুলের ডগাটি কড়ে আঙুলের ডগায় ছোঁয়ান। তারপর কবজি থেকে হাতের ডগাটি ভাঁজ করুন নিজের দিকে। এবার দেখুন, হাতের তালুর ঠিক নীচে কোনও উঁচু হয়ে থাকা শিরার মতো দেখা যাচ্ছে কি না

আমাদের শরীরের ভিতরকার অনেক সংবাদই শারীরিক আচার-আচরণের মাধ্যমে প্রকাশ পায়। সেরকম কি কোনও রহস্য লুকিয়ে রয়েছে কবজির এই শিরাটিতেও? এই শিরাটির অস্তিত্ব কি টের পাওয়া যায় আপনার হাতেও? ছোট্ট একটি পরীক্ষার মাধ্যমে আপনি নিজেই তা যাচাই করে নিতে পারবেন। হাতের তালু উপর দিকে রেখে আপনার বুড়ো আঙুলের ডগাটি কড়ে আঙুলের ডগায় ছোঁয়ান। তারপর কবজি থেকে হাতের ডগাটি ভাঁজ করুন নিজের দিকে। এবার দেখুন, হাতের তালুর ঠিক নীচে কোনও উঁচু হয়ে থাকা শিরার মতো দেখা যাচ্ছে কি না। প্রশ্ন হল, এই শিরার মতো অংশটি দেখা গেলেই বা কী, আর না গেলেই বা কী? এর উপস্থিতি বা অনুপস্থিতি কি আদৌ আমাদের শরীর সম্পর্কে কোনও বার্তা দেয়? এই প্রশ্নই রেখেছিলেন কিছু মানুষ একটি ডাক্তারি ওয়েবসাইটে। আসুন, দেখে নেওয়া যাক ডাক্তাররা এই প্রশ্নের উত্তরে কী বললেন।

ডাক্তাররা বলছেন, এই উঁচু হয়ে থাকা অংশটিকে শিরার মতো দেখালেও এটি আদপে কোনও শিরা নয়, বরং এটি একটি মাংসপেশি। একে বলা হয় পালমারিস লংগাস লিগামেন্ট মাসল। কবজি ও কনুইয়ের মাঝামাঝি জায়গায় এর অবস্থান। কবজির গঠনে এই মাংসপেশির কিছু ভূমিকা থাকে। যাঁদের ক্ষেত্রে এই মাংসপেশি উপরোক্ত প্রক্রিয়ায় প্রকট হয়ে ওঠে, তাঁদের হাতে এই মাংসপেশিটি বেশি পুষ্ট। এবং সাধারণত তাঁদের কবজির নমনীয়তা অপেক্ষাকৃত বেশি হয়।

আর যাঁদের হাতে এই মাংসপেশিটি উঁচু হয়ে ওঠে না? ডাক্তাররা বলছেন, তাঁদের কবজির কার্যকারিতা কম, এমনটা ভাবার কোনও কারণ নেই। আসলে মানবশরীরের ক্রমোন্নতি বর্তমানে এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে, পালমারিস লংগাস লিগামেন্টের ভূমিকা শরীরের কার্যকারিতায় অতি সামান্য। কাজেই এই শিরা প্রকট হয়ে উঠুক, কিংবা না উঠুক, তাতে আনন্দিত কিংবা চিন্তিত— কোনওটাই হওয়ার কোনও কারণ নেই।-এবেলা