মেইন ম্যেনু

মিয়ানমারের গণহত্যার বিরুদ্ধে স্মৃতিসৌধে গবি শিক্ষার্থীদের নির্বাক অবস্থান

আমরা ধর্মের নয়, মানবিকতার দাবি থেকে এসেছি : রোহিঙ্গা নির্যাতন বন্ধ করুন

15227914_1620806428214999_1600191899_n

বিধান মুখার্জী, গণ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যে সেনাবাহিনী কর্তৃক রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা, হামলা, নির্যাতন এবং দেশত্যাগে বাধ্য করার প্রতিবাদে ২৭ নভেম্বর রবিবার সকাল ১১ টায় মুখে কালো কাপড় বেঁধে সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধের সামনে নির্বাক অবস্থান নেন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থীরা । জাতীয় স্মৃতিসৌধের সামনে নির্বাক অবস্থানের মধ্যদিয়ে এই অমানবিক নিষ্ঠুরতা বন্ধে মিয়ানমার সরকার এবং জাতিসংঘসহ বিশ্বের মোড়ল দেশগুলোর সুদৃষ্টি কামনা করেন তারা।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক মাহবুবুর রহমান,আজিজুর রহমান সহ বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ২ শতাধিক শিক্ষার্থী। এ সময় তারা মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশের মুসলিম অধিবাসী রোহিঙ্গাদের উপর সেনাবাহিনীসহ স্থানীয় বৌদ্ধদের সাম্প্রদায়িক হামলার তীব্র প্রতিবাদ করেন এবং দ্রুত এ অমানবিক নির্যাতন ও নিপীড়ন বন্ধের দাবি জানান।

কর্মসূচি শেষে আইন বিভাগের শিক্ষক মাহবুবুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, ‘আমরা ধর্মের নয়, মানবিকতার দাবি থেকে এসেছি। রোহিঙ্গা নির্যাতন বন্ধ করুন’ । মায়ানমারের এই নৈতিকতার অবক্ষয় রোধে জাতিসংঘ ও বিশ্বের মোড়ল রাষ্ট্র গুলোর উচিত এর স্থায়ী সমাধানের চেষ্টা করা। কিন্তু তারা তা না করে প্রতিবেশী দেশ গুলোকে চাপ দিচ্ছে শরণার্থী নেয়ার জন্য। যা কোন দীর্ঘস্থায়ী সমাধান হতে পারেনা বলেও মত প্রকাশ করেন তিনি।

উল্লেখ্য অক্টোবরের প্রথম থেকেই অশান্ত মিয়ানমারের পরিস্থিতি । বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী রোহিঙ্গা মুসলিম-অধ্যুষিত রাখাইন রাজ্যে কয়েকটি পুলিশ ফাঁড়িতে সন্ত্রাসী হামলায় কয়েকজন পুলিশ সদস্য নিহত হবার পর অভিযানে নামে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী।জঙ্গি দমনের নামে সেনাদের চালানো অব্যাহত অভিযানে এরই মধ্যে সেখানকার বহু মুসলিম প্রাণ হারিয়েছেন।সেনাবাহিনীর আক্রমনে ঘর-বাড়ি,সহায়-সম্বল হারিয়ে রোহিঙ্গারা খোলা আকাশের নিচে বাস করছেন।নৌপথে পার্শ্ববর্তী দেশ সমুহে আশ্রয়ের জন্য যাওয়ার চেষ্টা করলেও এখন পর্যন্ত কোন দেশই তাদের শরনার্থী হিসেবে আশ্রয় দিতে রাজি নয়।ফলে, নিরুপায় হয়ে মানবেতর জীবনযাপনে বাধ্য হচ্ছে তারা।