মেইন ম্যেনু

আযান নিষিদ্ধ করার পর থেকে ভয়াবহ দাবানলে ইসরাইলে আহত ১৩৩

দখলদার ইহুদিবাদী ইসরাইলে টানা ৬ দিনের ভয়াবহ দাবানলে কমপক্ষে ১৩৩ জন আহত হয়েছে। এদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এছাড়া ১০ হাজারেরও অধিক মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। দাবানল অধিকৃত পশ্চিম তীরের অবৈধ ইহুদি বসতি এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে।

দাবানলে সেখানকার আবাসিক এলাকা এবং বনাঞ্চল ব্যাপকভাবে ধ্বংস হয়ে গেছে। বাস্তুচ্যুত হয়েছে হাজার হাজার মানুষ। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু সব ক্ষতিগ্রস্তদের সব রকমের সহায়তায় আশ্বাস দিয়েছেন।

ইসরাইল জুড়ে ৬৩০টি দাবালনের আগুন নিভাতে প্রায় ২,৫০০ জন অগ্নিনির্বাপক কর্মী কাজ করছে। আগুন নিভাতে রবিবার ৪৮০টি বিমানের সাহায্যে আড়াই লাখ টন পানি মাটিতে ফেলা হয়েছে।

রবিবার দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এ পর্যন্ত কয়েক শতাধিক ঘরবাড়ি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ১০ হাজারেরও অধিক মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ১৩৩ জন আহত হয়েছে। আহতদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে তারা জানান।

বন রক্ষা করার প্রচেষ্টায় অতিরিক্ত কর্মী যোগদান করেছে বলে কর্মকর্তারা জানান।

প্রচণ্ড খরা ও শুষ্ক আবহাওয়ার কারণে চলতি সপ্তাহে অধিকৃত ইসরাইলি ভূখণ্ডে দাবানল ছড়িয়ে পড়ে। ইসরাইলের পুলিশ মুখপাত্র জানান, দাবানল ছড়িয়ে দেয়ার সন্দেহে এ পর্যন্ত ১৪ জনকে আটক করা হয়েছে। তবে তাদের কারো পরিচয় প্রকাশ করেন নি এ পুলিশ মুখপাত্র।

আগুন নেভানোর জন্য রাশিয়া, তুরস্ক, গ্রিস, ফ্রান্স, স্পেন ও কানাডা থেকে বিমান পাঠানো হয়েছে। সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হাইফা শহরের লোকজন ঘরে ফিরতে শুরু করেছে। তারা ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করছে।