মেইন ম্যেনু

আশুলিয়ায় গ্যাস লাইটার কারখানায় অগ্নিকান্ডের ঘটনায় আহত ৩০

টিপু সুলতান(রবিন), স্টাফ করেসপন্ডেন্ট : সাভারে আশুলিয়ার জিরাবোতে একটি গ্যাস লাইটার কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের নয়টি ইউনিট প্রায় তিন ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় অন্তত ত্রিশ শ্রমিক অগ্নিদগ্ধসহ আহতের ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার বিকেল চারটার দিকে আশুলিয়ার জিরাবো এলাকার কালার ম্যাক্স লিমিটেড বিডি এর গ্যাস লাইটার তৈরীর কারখানায় এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় বিকেল চারটার দিকে কারখানার ভেতরে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হলে সাথে সাথেই আগুন পুরো কারখানায় ছড়িয়ে পরে।

এসময় কারখানা থেকে অগ্নিদগ্ধসহ অন্তত পচিশ শ্রমিককে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে প্রেরণ করে স্থানীয়রা।

ashulia-fire-pic-3

খবরপেয়ে ফায়ার সার্ভিসের আটটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌছে প্রায় আড়াই ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

ততোক্ষণে প্রায় এক বিঘা জায়গার উপর নির্মিত কারখানার আধা-পাকা একতলা ভবনটির মালামালসহ সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

এদিকে আগুনের ঘটনায় কারখানার যোগাযোগের সড়কটি সংকীর্ণ থাকায় আগুন নেভানোর কাজে বেগ পেতে হয় ফায়ার সার্ভিস কর্মিদের।

আহত শ্রমিকদের অধিকাংশ নারী শ্রমিক বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা। কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের সবাই নারী ও শিশু শ্রমিক বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ফায়ার সার্ভিস জানায়, বিকালের দিকে আশুলিয়ার জিরাবো এলাকার কালার ম্যাক্স (বিডি) লিমিটেড নামক লাইটার প্রস্তুতকারক ফ্যাক্টরীতে হঠাৎ আগুন দেখতে পায় কারখানার শ্রমিকরা।

এসময় তারা ডিইপিজেড ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা চালায়। পরবর্তীতে আগুনের তীব্রতা বেশী থাকায় সাভার,ধামরাই ও টঙ্গী থেকে ফায়ার সার্ভিসের আরও ৬টি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা চালায়। পরে প্রায় তিন ঘন্টা চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে ফায়ার সার্ভিস।

এব্যাপারে সহকারী পরিচালক মাসুদুর রহমান আকন আওয়ার নিউজকে জানায় প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারন ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমান সম্পর্কে জানা যায়নি।

এঅগ্নিকান্ডের ঘটনায় সর্বমোট ৩০জন আহত হয়েছে বলে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে জানিয়েছেন  ঢাকা১৯ আসনের সাংসদ ডাঃ এনামুর রহমান।এদের মধ্য ২৫ জন ঢাকামেডিকেল কলেজ বার্ণইউনিটে আর বাকি ৫ জন এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছে। এদের মধ্য ১ জনের অবস্থা আশঙ্কা জনক বলে জানা গেছে।এঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে,এবং আগমী সাত দিনের মধ্য তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে।

ashulia-fire-pic-4