মেইন ম্যেনু

উৎসবের আমেজে যোগ্য নেতৃত্বের অপেক্ষা

আওয়ামী লীগের ২০ তম জাতীয় ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ঘিরে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ বইছে। উৎসবমুখর পরিবেশের মাধ্যমেই যোগ্য নেতৃত্বের সন্ধানে রোববার কাউন্সিল অধিবেশনে অংশ নেবেন কাউন্সিলররা।

শনিবার সকাল ১০ টা ৫ মিনিটে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে ২০তম সম্মেলনের উদ্বোধন করেন দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা। এর আগে সকাল সাতটা থেকেই নেতাকর্মীদের ঢল নামে সম্মেলন স্থল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের দিকে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে এ ভিড় আরও তীব্র হতে থাকে। তবে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে সম্মেলন স্থলে ঢুকলেও নেতাকর্মীদের মধ্যে আনন্দের কমতি ছিল না।

সম্মেলন স্থলে শেখ হাসিনা আসার পূর্বেই লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। তাদের অপেক্ষা তখন শেখ হাসিনা কখন আসবেন। আর সম্মেলন স্থলে এসে শেখ হাসিনা সম্মেলনের উদ্বোধন করতেই সুশৃংখল হয়ে ওঠে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। জাতীয় সঙ্গীতের বাজানোর সাথে সাথে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন শেখ হাসিনা ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। পরে পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে সম্মেলন উদ্বোধনের পর আগুন সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, সড়ক দুর্ঘটনাসহ নানাভাবে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে নীরবতা পালন করা হয়। এর আগে ছিল সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

এদিকে কড়া নিরাপত্তার কারণে সম্মেলনস্থলে ঢুকতে না পারলেও উৎসব আমেজে ভাটা পড়েনি সাধারণ কর্মীদের। হাজার হাজার কর্মী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আশেপাশে শাহবাগ মোড়, টিএসসি, দোয়েল চত্বর ও হাইকোর্ট মাজার মোড় সংলগ্ন এলাকায় ভিড় করেন।

অন্যদিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মূল প্যান্ডেলে স্থান সংকুলান না হওয়ায় উদ্যানের অন্যান্য স্থানে জেলাভিত্তিক নেতাকর্মীরা খণ্ডখণ্ডভাবে জটলা করে অবস্থান নেন। দলের নেতৃত্ব নিয়েই এসময় তাদের বেশি আলোচনা করতে দেখা যায়। তাদের প্রত্যাশা, অতীতের মতো এবারও যোগ্য নেতৃত্ব বেরিয়ে আসবে সম্মেলনের মাধ্যমে।

কিশোরগঞ্জের কাউন্সিলর ফরিদ আহমেদ বলেন, সম্মেলনে এসে খুব ভালো লাগছে। বিশেষ করে বিভিন্ন জেলার নেতাদের সাথে পরিচয়ের সুযোগ এসেছে। আর আওয়ামী লীগের সম্মেলন মানেই তো আলাদা আবেগ।

কেমন নেতৃত্ব চান জানতে চাইলে তিনি বলেন, অতীতের মতই যোগ্য নেতৃত্ব বেরিয়ে আসবে আশা করি। যাতে নেত্রীর ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে এ কমিটি কাজ করতে পারে।

খুলনার কাউন্সিলর বাদল মিয়া বলেন, আগামী নির্বাচনেও যেন জিততে পারি এমন নেতৃত্বের প্রত্যাশা করছি। শান্তিপূর্ণভাবে সম্মেলন শেষ হলে খুবই ভাল লাগবে।

তিনি বলেন, দূর থেকে অনেক কষ্ট করে সম্মেলনে এসেছি। কিন্তু আওয়ামী লীগের হাজার হাজার নেতাকর্মীদের দেখে খুবই ভালো লাগছে।

রোববার দুপুরের পর কাউন্সিল অধিবেশনে দলের আগামী দিনের নেতৃত্ব বেরিয়ে আসবে।