মেইন ম্যেনু

একটি কারণে মোদির প্রশংসায় পঞ্চমুখ ঐশ্বর্য

অভিনেত্রী ঐশ্বর্য রায় বচ্চন, রাজনৈতিক কোনও প্রসঙ্গে মন্তব্য করার বিষয় সবসময়ই নীরবতা বজায় রেখেছেন। কিন্তু এই প্রথমবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ্য খুললেন অ্যাশ। অ্যাশ দেশটির আমজনতা এবং প্রধানমন্ত্রী দুজনের উদ্দেশ্যেই বলেছেন, দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করার জন্যে মোদীর এই সাহসী পদক্ষেপ নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়। এধরনের পদক্ষেপ গ্রহণের আগে যেকোনও দেশের রাষ্ট্রনেতা একাধিকবার চিন্তা করতেন। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত নিয়ে এক অন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন মোদি, মন্তব্য ঐশ্বর্যের।

তবে মোদির এই সিদ্ধান্তে দেশের আমজনতা যে বিপাকে পড়েছেন, তাঁদের উদ্দেশ্যে বচ্চন বহুর বার্তা, বড় স্বার্থের জন্যে ছোট ছোট অসুবিধে যেন প্রত্যেকেই একটু মানিয়ে নেন, তাহলে সকলেরই ভাল হবে। এরসঙ্গে অভিনেত্রী একথাও বলেন, পরিবর্তন প্রথমদিকে কখনওই সুখকর হয় না। কিন্তু মানিয়ে নিতে পারলে, তা নিঃসন্দেহে সকলের জন্যেই ভাল হয়।

মোদির ৫০০ ও হাজারের নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের জেরে, এবং এটিএমগুলোতে পর্যাপ্ত অর্থ না থাকায়, বিশাল সমস্যায় পড়েছেন দেশের সাধারণ নাগরিক। গত চার দিন ধরে বিভিন্ন ব্যাঙ্কের বাইরে লম্বা লাইন দেখা গিয়েছে, টাকা তুলতে বা নোট বদলাতে গিয়ে বহু মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এমনকি মৃত্যুও হয়েছে অনেকের। সারা দেশে এটিএম পরিষেবা ভেঙে পড়ায়, লোকের অ্যাকাউন্টে টাকা থাকলেও, হাত একেবারে খালি হয়ে গিয়েছে। হাসপাতালগুলোও পুরনো নোট নিতে অস্বীকার করায়, বিপাকে পড়েছেন বহু রোগী। তাদেরকেই একটু ধৈর্য ধরে পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন অভিনেত্রী।

মোদির এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে এরমধ্যেই সোচ্চার হয়েছে বিরোধী দলগুলো, যেমন কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস, আম আদমি পার্টি। এমনকি বিজেপির সহযোগী দল শিবসেনাও মোদীর এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছে। -এবিপি আনন্দ।