মেইন ম্যেনু

একাকি সময় কাটাতে ভালো লাগলে আপনি ধারণার চেয়েও বেশি স্মার্ট

প্রচুর সংখ্যক গবেষণায় দেখা গেছে, যারা সামাজিক মেলামেশা করেন বেশি বেশি তাদের মধ্যে সুখি হওয়ার প্রবণতাও বেশি। সম্পর্কসমূহ, বন্ধুত্বসমূহ, উপভোগ্য লোকদের সঙ্গে সময় ব্যয় করা… এর সবগুলোই আমাদেরকে আরো সুখি করে।

কিন্তু আপনি যদি উচ্চ বুদ্ধিমত্তার অধিকারী হন সেক্ষেত্রে এগুলো সত্য নাও হতে পারে। বন্ধুদের সঙ্গে সামাজিক মেলামেশার মাধ্যমে উচ্চ বুদ্ধিমত্তার অধিকারীদের জীবন নিয়ে সুখের মাত্রা বাড়ে না। বরং তাদের সুখের মাত্রা আরো কমতে থাকে।

গবেষকদের মতে এর একটি কারণ বিবর্তনগত। উচ্চ বুদ্ধিমত্তার ফলে লোকে আধুনিক দুনিয়ায় সহজেই নিজেকে মানিয়ে নিতে পারেন।
যেখানে এখন আর খাদ্য, আশ্রয়, প্রতিরক্ষার জন্য বিশেষ কোনো সামাজিক গোষ্ঠীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে যুক্ত থাকা আবশ্যক নয়।

আরেকটি তত্ত্ব হলো এর একটি কারণ আকাঙ্খাজাত। আপনি যত স্মার্ট হবেন ততই আপনি দীর্ঘমেয়াদি লক্ষ্য-উদ্দেশ্যের প্রতি মনোযোগী হবেন। আর বন্ধুদের সঙ্গে সময় ব্যয় করাটা সহায়ক হওয়ার চেয়ে বরং বিভ্রান্তিকরই হয় বেশি।

সংক্ষেপে, আপনি যদি আমার সঙ্গে বাইরে ঘুরে বেড়ান তাহলে আপনার হাতের অসম্পন্ন কাজ পড়ে থাকবে।

তবে অবশ্যই এটি মাত্র একটি গবেষণা এবং শুধু হয়তো গতিপথগত দিক থেকেই সঠিক। কিন্তু মোটের ওপর এমন অনেকে আছেন যারা বিশেষ প্রতিভাবান না হওয়ার কারণে একাকি সময় কাটাতে পছন্দ করেন।

তবে আপনি যদি বিশেষ কোনো প্রকল্পে একাকি কাজ করতে পছন্দ করেন, নতুন কিছু শিখতে একাকি সময় কাটান, ব্যবসা পরিকল্পনা লিখতে গিয়ে একাকি হন বা আপনার লক্ষ-উদ্দেশ্যে পৌঁছাতে যত পদক্ষেপ গ্রহণ দরকার তার সবগুলোতেই একাকি হয়রান হন তাহলে আপনি নিজেকে নিঃসঙ্গ অনুভব করবেন না যেন।

আপনি হয়তো আমাদের বাকী সকলের চেয়ে একটু বেশি স্মার্ট।

সূত্র: আইএনসি ডটকম



« (পূর্বের সংবাদ)