মেইন ম্যেনু

এক বলিউড অভিনেত্রীর পালিয়ে গিয়ে পাইলট হবার গল্প

সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না বলিউডের এই নামী অভিনেত্রীর। বছর দুয়েক আগে সাধারণ নির্বাচনের পর থেকেই দুষ্টু-মিষ্টি চঞ্চলমতির এই মেয়েটিকে কেউ দেখতে পাননি বলেই দাবি করা হচ্ছিল। এমনকী, বলিউডে তাঁর সঙ্গে কাজ করা বহু মানুষই ঠিক করে বলতে পারছিলেন না গুল পানাগ কোথায় গেলেন।

গুল পানাগ, ১৯৯৯ সালের মিস ইন্ডিয়া। এরপর দীর্ঘ মডেলিং ক্যারিয়ার। টেলিভিশন থেকে শুরু করে, মঞ্চ, তারপর বলিউডেও নিজের অভিনয় প্রতিভা দিয়ে মন জয় করেছেন সকলের। জীবনের বাঁধা গতটা পছন্দ করেন না পঞ্জাবের এই মেয়ে। নির্দিষ্ট গ-ীর বাইরে বেরিয়ে সবসময়ে জীবনের স্বাদ নেওয়াটাই তাঁর স্বভাব। সেই কারণে, মেধাবী ছাত্রী হয়েও অনায়াসে ঢুকে পড়তে পারেন ফ্যাশন দুনিয়ায়। আবার সেখান থেকে নেমে পড়তে পারেন মঞ্চ অভিনয়ের চৌহদ্দিতে, বা পেন হাতেও গর্জে উঠতে পারে তাঁর মন। যেসব লেখনিকে সহজে অবহেলা করাটা সত্যিই শক্ত।

এ হেন গুল নিজের বিয়েতে হাজির হয়েছিলেন রয়্যাল এনফিল্ড চালিয়ে। স্বভাব-চরিত্রে ‘পাগল’ আখ্যা পাওয়া গুল পানাগ কিন্তু এখন একজন লাইসেন্সধারী প্রাইভেট পাইলট। গত ১০ নভেম্বর এই লাইসেন্স পেয়েছেন গুল।

পাইলট প্রশিক্ষণের একাধিক ছবি এই মুহূর্তে ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে পোস্ট করেছেন গুল পানাগ। তাতেই দেখা যাচ্ছে, তাঁকে পাইলটের পরীক্ষায় পাশ করার পর ব্যাচ পরিয়ে দিচ্ছেন তাঁর স্বামী, তথা প্রশিক্ষক, এয়ারলাইন পাইলট ঋষি আটারি। এহেন কীর্তিতে উচ্ছ্বসিত গুল পানাগ। ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে গুল লিখেছেন তিনি জীবনে শুধুই পাইলট হতে চেয়েছিলেন।

আর শেষ পর্যন্ত বহু চড়াই-উতরাই পেরিয়ে সেই লক্ষ্যে পৌঁছতে পেরেছেন। কিন্তু, ব্যস্ত স্টারডম-এর মধ্যে কীভাবে পাইলটের প্রশিক্ষণ নিলেন? গত লোকসভা নির্বাচনে আম আদমি পার্টির হয়ে লড়েছিলেন গুল পানাগ। কিন্তু, খুব অল্প ব্যবধানে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিজেপির কিরণ খেরের কাছে হেরে যান তিনি। এরপরই স্বভাবতই মন খারাপ হয়ে গিয়েছিল গুলের। সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করতে শুরু করেন।

এরই মাঝে তিনি নাকি ছুটি নিয়ে নেন বলিউড জীবন থেকে। যার ফলে বলিউডে গত কয়েক বছরে কোনও ছবিতে সই করেননি তিনি। শুধুই ব্যস্ত থেকেছেন সাধারণ মানুষের সেবায়। আর তার সঙ্গে চালিয়ে গিয়েছেন পাইলট হওয়ার প্রশিক্ষণ। এখন তো পাইলট হলেন। তাহলে কী করবেন গুল? নিজে কি কোনও প্রাইভেট জেট কিনে তা চালাবেন? না মিষ্টি টোল ফেলা হাসিতে ফের সেলুলয়েডে ভাসিয়ে দেবেন এক আত্মতৃপ্তির মুখ, যার নাম গুল পানাগ। সূত্র-ওয়েবসাইট