মেইন ম্যেনু

এখনো খোঁজ মেলেনি ২৮ বাংলাদেশি হজযাত্রীর

044154-ha

চলতি বছর পবিত্র হজ পালন করতে যাওয়া ২৮ বাংলাদেশি হজযাত্রীর কোনো খোঁজ মিলছে না। সৌদি সরকারের অনুমোদনপ্রাপ্ত মোয়াসাসা কার্যালয়ে জমা দেয়া আছে তাদের পাসপোর্ট। কিন্তু তাদের পাসপোর্ট নিতে এখনো তারা ওই কার্যালয়ে যোগাযোগ করেননি।

এ সকল হজযাত্রীর ব্যাপারে বাংলাদেশের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কাছে কোনো তথ্য রয়েছে কি না তা জানতে চেয়েছে মোয়াসাসা কার্যালয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একজন দায়িত্বশীল ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা চিঠি প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে বলেন, এই ২৮ জন হাজি বাংলাদেশের কোন এজেন্সির মাধ্যমে হজে গেছেন তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ধর্ম মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট এজেন্সিগুলোর কাছে এ ব্যাপারে ব্যাখ্যা চাইবে বলে ওই কর্মকর্তা মন্তব্য করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাংলাদেশ থেকে যতসংখ্যক হজযাত্রী যান তাদের প্রত্যেকের পাসপোর্ট জেদ্দা এয়ারপোর্ট থেকে বের হয়ে বাসে উঠার সময় নিয়ে নেয়া হয়। সেগুলো বাধ্যতামূলকবাবে মোয়াসাসা অফিসে জমা থাকে। হজ শেষে পাসপোর্টগুলো আবার মনোনীত এজেন্সি কিংবা হজযাত্রীর কাছে ফেরত দেয়া হয়।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ১ হাজার ৭ শত ৫৮ জন হজে যান। ইতোমধ্যেই বিমান বাংবালাদেশ এয়ারলাইন্স ও সৌদি এয়ারলাইন্সযোগে সাড়ে ৯৫ হাজার যাত্রী দেশে ফিরে এসেছেন।

হজ এজেন্সিস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) সভাপতি ইব্রাহিম বাহার জানান, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নিদের্শনা অনুসারে তারা ইতোমধ্যেই সংশ্লিষ্ট এজেন্সিগুলোর কাছে জানতে চেয়েছেন যে হজে মোট পাঠানো ও ফিরে আসা যাত্রীসংখ্যা কত।

তিনি বলেন, সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীর অর্ধেক বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও সৌদি এয়ারলাইন্সযোগে পাঠানো হয়। পবিত্র হজ পালন শেষে অনেকেই ব্যস্ততার কারণে বিমান পরিবর্তন করে কমপক্ষে ৭ থেকে ৮টি থার্ড ক্যারিয়ার বিমানে দেশে ফেরত আসেন। ফলে ফেরত আসা যাত্রীর সঠিক সংখ্যা পাওয়া যাচ্ছে না বলে তিনি মন্তব্য করেন।