মেইন ম্যেনু

এবার অভিবাসীদের বিক্ষোভ যুক্তরাষ্ট্রে

trump-sm20161114065531

নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সেদেশ থেকে অবৈধ অভিবাসীদেরকে বের করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। ট্রাম্পের এই ঘোষণার প্রতিবাদে দেশটিতে বসবাসকারী হাজার হাজার অভিবাসী ট্রাম্প টাওয়ারের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন।

এর আগে, নির্বাচনের পর প্রথমবারের মতো দেশটির প্রভাবশালী টেলিভিশন সিবিএসের সিক্সটি মিনিট প্রোগ্রামে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, দায়িত্ব গ্রহণের পর খুব শিগগিরই ২০ থেকে ৩০ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠাবেন।

ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে হাজার হাজার অভিবাসী দেশটির ট্রাম্প টাওয়ারের সামনে বিক্ষোভ করছেন। এ সময় অনেকের হাতে ট্রাম্পবিরোধী প্ল্যাকার্ড দেখা যায়। এ ছাড়া প্রতিবাদকারীদের অনেকেই গিটার হাতে প্রতিবাদী গান পরিবেশন করছেন।

রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় সিবিএসে ট্রাম্পের ওই সাক্ষাৎকার প্রচারিত হয়েছে। এতে জোর দিয়ে ট্রাম্প বলেন, তার নির্বাচনী প্রচারণার গুরুত্বপূর্ণ অংশ ছিল মেক্সিকো-যুক্তরাষ্ট্র সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণ করা। নির্বাচনী প্রচারণার সময় সদ্যনির্বাচিত এই প্রেসিডেন্ট যুক্তরাষ্ট্রে মেক্সিকোর নাগরিকদের প্রবেশ ঠেকাতে সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণের অঙ্গীকার করেন। সে সময় প্রতিবেশি দেশ মেক্সিকোকে উদ্দেশ্য করে ট্রাম্প বলেছিলেন, তারা ধর্ষক ও অপরাধীদের যুক্তরাষ্ট্রে পাঠাচ্ছে।

সিক্সটি মিনিট প্রোগ্রামে ট্রাম্প বলেন, দায়িত্ব গ্রহণের পর শিগগিরই তিনি ২০ থেকে ৩০ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে ফেরত পাঠাবেন। তিনি বলেন, আমরা যাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছি তারা হলেন; যারা অপরাধী এবং যাদের বিরুদ্ধে অপরাধের রেকর্ড রয়েছে, কোনো সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য অথবা মাদক ব্যবসায়ী, প্রচুর সংখ্যক এমন মানুষ রয়েছে, সম্ভবত ২০ লাখ এমনকি তা ৩০ লাখও হতে পারে- আমরা তাদেরকে দেশ থেকে বের করে দিতে যাচ্ছি অথবা কারাবন্দি করতে যাচ্ছি।

নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ট্রাম্প টাওয়ারের সামনে জড়ো হওয়া বিক্ষোভকারীদের হাতে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড দেখা যায়। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা অভিবাসীদের বিক্ষোভ লাইভ সম্প্রচার করেছে। এতে অনেকের হাতে প্ল্যাকার্ডে দেখা যায়, মিস্টার ট্রাম্প; আমাদের সঙ্গে উপহাস করবেন না; ঘৃণা আমাদের মহান করতে পারে না, আমরা এখানে বসবাসের জন্য এসেছি।