মেইন ম্যেনু

এবার যশোরে স্কুলছাত্রীকে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ

যশোরে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার কিশোরীর মা বাদী হয়ে যশোর কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা করেন।

মামলায় সদর উপজেলার পাগলাদহ গ্রামের পঞ্চাশোর্ধ্ব আবদুল খালেককে আসামি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক।

ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী যশোরে নানির বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করে। তাদের বাড়ি মাদারীপুর সদর উপজেলায়। তারা বাবা-মা ঢাকায় থাকেন।

কিশোরীর বাবার ভাষ্য মতে, বড় মেয়ে যশোরে নানির কাছে থেকে লেখাপড়া করছে। গত বুধবার সন্ধ্যায় কোচিংয়ে পড়তে যাওয়ার সময় স্থানীয় প্রভাবশালী আবদুল খালেক তাকে জোর করে বাড়ির পাশের জঙ্গলের ভিতরে নিয়ে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করে। ভয়ে মেয়েটি প্রথমে কিছুই জানায়নি। পরে গত শুক্রবার রাতে তার মায়ের কাছে বিষয়টি জানায় সে। এরপর থানায় গিয়ে ধর্ষণের মামলা করা হয়।

এ ব্যাপারে যশোর কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস হোসেন বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে মেয়েটির মা বাদী হয়ে আবদুল খালেককে আসামি করে একটি মামলা করেছেন। রোববার যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেয়া হবে। অভিযুক্ত খালেক পলাতক। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করা হচ্ছে।