মেইন ম্যেনু

এবার রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে তৈরী হচ্ছে চলচ্চিত্র

_92649319_rohinga

এবার রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে ছবি নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছেন ৯ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড। ইতোমধ্যে তিনি চিত্রনাট্য লেখার কাজও শেষ করেছেন এবং কলকাতার সমদর্শী দত্ত ও শ্বাশত চট্টোপাধ্যায়কে চুক্তিবদ্ধও করেছেন।

ছবি প্রসঙ্গে পরিচালক জানান, এ ছবিটির জন্য তিনি থাইল্যান্ড-মিয়ারমার সীমান্ত, চট্টগ্রাম, নাফ নদী ও বঙ্গোপসাগরকে লোকেশন হিসেবে ব্যবহার করবেন। প্রচ- পরিশ্রম করতে হবে তাকে এ ছবিটি নির্মাণের জন্য- এ কথাটি বলতেও তিনি ভুল করেননি। এর আগে ডায়মন্ড ফারাক্কা সমস্যা নিয়ে অন্তর্দান, সাওতাল বিদ্রোহে নেতৃত্বদানকারী ইলা মিত্রের জীবন অবলম্বনে নাচোলের রাণী ও গঙ্গাযাত্রা নির্মাণ করেছেন।

অন্তর্দান ছবিটির জন্য ভারতীয় গণমাধ্যমসহ দেশীয় বুদ্ধিজীবিদের ব্যাপক সাড়া পেয়েছেন তিনি। অন্তর্দান ও গঙ্গাযাত্রা ছবিতে তার বড় মেয়ে সাবরিনাও অভিনয় করেছেন। তিনিও দুটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। যাহোক, ডায়মন্ড বর্তমানে শেষ করেছেন শেষ কথা নামে একটি ছবি। এ ছবিটি প্রেম-বিরহের হলেও চিত্রনাট্যের বুনোটে স্থান পেয়েছে বাঙালির ঐতিহ্যগাথা। আগামী এপ্রিল থেকে শুটিং শুরু করবেন রোহিঙ্গা ছবিটির।

ডায়মন্ড বলেন, ‘আমি সমসাময়িক বিষয় নিয়ে কাজ করতে বেশি পছন্দ করি। রোহিঙ্গা শুধু একটি সংকটের নাম নয়। এটা এখন একটি আন্তর্জাতিক ইস্যু। এই সংকট নিয়ে জাতিসংঘও মাথা ঘামাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের উপর যে নির্যাতন, সহিংসতা, হত্যা, নারীদের সম্ভ্রমহানী অর্থাৎ যে অমানবিক আচরণ করা হয়েছে তার চিত্র তুলে ধরা হবে আমার ছবিটিতে। আজকে তারা ছড়িয়ে পড়েছে অস্ট্রেলিয়া, থাইল্যান্ড, এমনকি বাংলাদেশেও। তারও একটা মোটামুটি চিত্র থাকবে ছবিটিতে।’

তিনি বলেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা একদিকে সহিংসতার বিরুদ্ধে কথা বলছেন, আরেক দিকে মিয়ানমারকে সহায়তাও করছেন। অং সান সুচি শান্তিতে নোবেল পেলেও তার আমলেই রাখাইন প্রদেশে অশান্তির আগুন জ্বলছে, তিনি দিব্যি সেটা দেখেও না দেখার ভান করছেন। এ সবই থাকবে আমার ছবিতে।’