মেইন ম্যেনু

এবার স্ত্রী মরদেহ ঠেলাগাড়িতে নিয়ে ৬০ কিলোমিটার কাঁদতে কাঁদতে গেলেন হতভাগা স্বামী!

টাকার অভাবে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করতে না পেরে ঠেলাগাড়িতে করে স্ত্রীর মরদেহ নিয়ে ৬০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিলেন এক স্বামী। ঘটনা ভারতের তেলেঙ্গানায়। ২৪ কিলোমিটার হাঁটার পর ক্লান্ত রামুলু রাস্তার পাশে পড়ে ছিলেন। লোকজন পুলিশকে খবর দেয়া পর্যন্ত অচেতন অবস্থায়ই ছিলেন হতভাগা ওই স্বামী।

প্রায় মাস তিনেক আগে ওড়িশ্যায় টাকার অভাবে হাসপাতাল থেকে অ্যাম্বুলেন্স না পেয়ে স্ত্রী মরদেহ ঘাড়ে করে দীর্ঘ ১০ কিলোমিটার হেঁটেছিলেন স্বামী দানা মাঝি। সেই ছবি প্রকাশ হওয়ার পর নড়েচড়ে বসেছিল পুরো ভারত।

কুষ্ঠরোগী হওয়ায় গ্রামের অন্যদের কাছ থেকে রামুলু ও কবিতা ছিলেন পুরোপুরি আলাদা। নিজের আত্বীয়-স্বজন থেকে কোনো সাহায্য পাননি তারা।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, তেলেঙ্গানার রামুলু এবং তার স্ত্রী কবিতা দুজনেই কুষ্ঠরোগী এবং ভিক্ষা করে জীবন ধারণ করতেন। গত শুক্রবার হায়দরাবাদের রেল স্টেশনের কাছে মারা যান কবিতা। স্ত্রী মরদেহ গ্রামে নিতে চাইলে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া চায় ৫০০ হাজার রুপি (ভারতীয় মুদ্রা)। কিন্তু ১০০০ রুপির বেশি দেয়ার ক্ষমতা ছিল না রামুর।

উপায়ান্তর না দেখে স্ত্রী মরদেহ নিয়ে হায়দরাবাদ থেকে রওয়ানা দেন রামুলু। কিন্তু রাতে পথ হারিয়ে বসেন তিনি। শনিবার সকালে বিক্রমবাদ নামক জায়গায় পৌঁছান। ক্লান্ত রামুলু একসময় স্ত্রীর মরদেহের পাশে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকেন। এক সময় পথচারীরা দেখেন এক মহিলার লাশের পাশে পড়েন আছেন এক পুরুষ। এরপর ঘটনা শুনে পথচারী টাকা-পয়সা তুলে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে দুই ভিখারিকে ৮০ কিলোমিটার দূরের গ্রামে পাঠায়। -চ্যানেল আই।