মেইন ম্যেনু

এলিট ফোর্সে দক্ষ কর্মকর্তারাই প্রাধান্য পায় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

kamal-khan_86306

বিশেষ কোন বাহিনী নয়, এলিট ফোর্স হিসেবে র‌্যাবে দক্ষ কর্মকর্তাদেরকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে পুলিশ, আনসার, বিজিবি কিংবা সেনাবাহিনীর কাউকেই বিশেষভাবে নেওয়া হয় না। সব বাহিনীর দক্ষ কর্মকর্তাদেরই র‌্যাবে রাখা হয়।

রোববার দুপুরে র‌্যাব সদর দপ্তরে ১২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এসব কথা বলেন। এ সময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর পাশে র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্ণেল জিয়াউল আহসান ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোজাম্মেল হক উপস্থিত ছিলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘র‌্যাবে কর্মকর্তা ও সদস্য নেওয়ার ক্ষেত্রে কোন বাহিনীকে বিশেষভাবে দেখা হয় না। এলিট ফোর্স হিসেবে এখানে সব বাহিনীর দক্ষ কর্মকর্তাদের নেওয়া হয়। এখানে যারা কাজ করেন তাদের সবাই পরিবারের সদস্যর মতো হয়ে থাকেন। সবাই মিলেমিশে কাজ করেন। কারো মাঝে কোন অন্তরায় তৈরি হয়নি। কোন বছর কোন এক বাহিনী থেকে র‌্যাবে কম সদস্য আসলে পরবর্তী সময়ে তা পূরণ করা হয়।’

আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘১২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে র‌্যাবের সকল ইউনিট প্রধানদের সঙ্গে কথা হয়েছে। আগামীতে কীভাবে আরো সক্ষমতা বৃদ্ধি করা যায় তা নিয়ে কথা হয়েছে। জনমানুষের আকাঙ্খা পুরণ করে র‌্যাব কীভাবে এগিয়ে যেতে পারে তা নিয়ে কথা হয়েছে। অনেকের কাছ থেকে পরামর্শ এসেছে কিভাবে সক্ষমতা বৃদ্ধি করা যায়। এর মধ্যে লজিস্টিক সাপোর্ট, বাহিনীর কিছু আইনি সংস্কার ও জনবল বৃদ্ধির কথা বলা হয়েছে। এগুলো পর্যায়ক্রমে বৃদ্ধি করা হবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘র‌্যাব যেভাবে চলছে তা আরো যুগোপযোগী করা হবে। দেশে জঙ্গি ও সন্ত্রাসী দমনে র‌্যাবের ভূমিকা অতীব গুরুত্বপূর্ণ। যেসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড দমন করে দেশকে আগামীর দিকে এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে, তাতে বিশাল ভূমিকা র‌্যাবের রয়েছে। তাই আগামীতে আরো সক্ষমতা বৃদ্ধি করে র‌্যাবের কার্যক্রমকে এগিয়ে নেওয়া হবে।’

কুমিল্লায় তনু হত্যার বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘সব ধরণের সহযোগিতা দিয়ে তনু হত্যার তদন্তকাজ চলছে। তদন্তের আগে কিছু বলা যাবে না। তবে খুব তাড়াতাড়ি এ ব্যাপারে দৃশ্যমান অগ্রগতি জাতি দেখতে পাবে।’

বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থ চুরির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এটিও সিআইডি তদন্ত করছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত বলা যাবে।’