মেইন ম্যেনু

কথা দিয়েও সম্মেলনে গেলো না বিএনপি

23

নানা আলাপ আলোচনার জন্ম দিয়েও শেষ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে অংশ নেয়নি বিএনপি। শুক্রবার বিএনপির মধ্যম সারির একজন নেতা সম্মেলনে যাওয়ার ইঙ্গিত দেয়ার পর ধারণা করা হয়েছিল, বিএনপি অংশ নিবে। কিন্তু সেই ধারণা আর সত্য হয়নি।

বলা হচ্ছে, সম্মেলনে যোগ দেয়া নিয়ে আওয়ামী লীগের পথেই হাটলো বিএনপি। কারণ গত মার্চে অনুষ্ঠিত বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলে আওয়ামী লীগকে আমন্ত্রণ জানালেও তাতে দলটির কেউ যায়নি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে দুইদিন ব্যাপী কাউন্সিলে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে আমন্ত্রণ জানায় আওয়ামী লীগ। আমন্ত্রণ পাওয়ার সম্মেলনে যাওয়া না যাওয়া নিয়ে মির্জা ফখরুল জানিয়েছিলেন, দলীয় ফোরামে আলোচনা করে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে।

জানা গেছে,ওইদিন রাতে বিএনপি নেতারা তাদের চেয়ারপারসনের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগের কেউ তাদের সম্মেলনে না আসায় বেগম খালেদা জিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এবং সম্মেলনে যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না বলেও জানান বলে শোনা গেছে।

এই অবস্থার মধ্যে শুক্রবার দিনভর আলোচনা ছিলো- বিএনপি কী শেষ পর‌্যন্ত সম্মেলনে যাবে কি না। শেষ পর‌্যন্ত বিএনপি প্রতিনিধি দল পাঠাতে পারে এমন গুঞ্জনও শোনা যাচ্ছিল।

শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল জানিয়েছিলেন, পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে তারা সম্মেলনে অংশ নিবেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার বক্তব্যে প্রমাণিত হয়নি। শুধু তাই নয়, শনিবার সকাল থেকে আলালের ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া গেছে।

বিএনপি কেন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে যায়নি, এ বিষয়ে জানতে বিএনপির একাধিক নেতার সঙ্গে যোগাযোগ করেও আনুষ্ঠানিক কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। যাদের সঙ্গে কথা হয়েছে তাদের প্রায় সবাই বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন। কেউ কেউ বলেছেন, তারা এ বিষয়ে কিছু জানেন না।

এদিকে সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে মহাজোটের শরিকসহ দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা যোগ দেন।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, মহাসচিব আবদুল মান্নান, বাংলাদেশ জাতীয় জোটের প্রধান ও সাবেক মন্ত্রী নাজমুল হুদা,জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, মহাজোটের শরিক বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু, সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার, জাসদ (রব) সভাপতি আ স ম আবদুর রব, জাতীয় পার্টি (জেপি) মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, তরিকত ফেডারেশনের সভাপতি নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান খান ও বর্তমান সভাপতি মুজাহিদুল সেলিম প্রমুখ।

এছাড়া সম্মেলনে চীন, ভারত, রাশিয়া, কানাডা, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ইতালি, শ্রীলংকা, নেপালসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাজনৈতিক দলের নেতারা এ সম্মেলনে যোগ দেন।