মেইন ম্যেনু

কবুতরের পর এবার ‘বাজ-গুপ্তচর’ পাঠাচ্ছে পাকিস্তান!

ভারত পাকিস্তানের যুদ্ধাবস্থার মধ্যেই কিছুদিন আগে সীমান্তে গোয়েন্দা কবুতর আটকের দাবি করেছিল ভারত। এবার দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) বরাত দিয়ে দেশটির সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে এবার গুপ্তচর হিসেবে বাজপাখি পাঠিয়েছে পাকিস্তান!

আজ বৃহস্পতিবার ভারতের সংবাদমাধ্যম এশিয়ান নিউজ ইন্টারন্যাশনাল (এএনআই) জানিয়েছে, ভারতের রাজস্থানের মরুভূমিতে একটি প্রশিক্ষিত বাজপাখি আটক করেছে বিএসএফ। পাকিস্তানের সীমান্তবর্তী রাজ্যটির বিকানের জেলার অনুপগড় বিএসএফের ঘাঁটির ওপর দিয়ে কয়েকদিন ধরেই নজরদারি চালাচ্ছিল প্রশিক্ষিত ‘বাজ-গুপ্তচরটি’। পরে বিএসএফ গুলতির সাহায্যে বাজপাখিটিকে আহত করে আটক করে। তবে আটক বাজপাখির দেহে ট্রান্সমিটার বা গুপ্তচরবৃত্তির কোনো সরঞ্জাম পাওয়া গেছে কি না তা জানাতে পারেনি এএনআই।

তবে বিএসএফ সূত্র বাজপাখিটির শরীরে একটি বিশেষ ‘ট্যাগ বা প্রতীক’ পাওয়ার খবর জানিয়েছে।

এদিকে বিএসএফের আরেকটি সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ডিএনএ জানায়, বাজপাখিটি কোনো সৌদি শেখের হতে পারে। কারণ রাজস্থানের সীমান্তবর্তী পাকিস্তানের ওই অঞ্চলে প্রতিবছর এই সময়ে বিপন্ন ‘হাউবারা বাস্টার্ড’ পাখি শিকারে যান সৌদি শেখরা।

গত ২ অক্টোবর ‘অত্যন্ত স্পর্শকাতর’ পাঞ্জাবের উত্তরাঞ্চলের পাঠানকোট সীমান্ত থেকে একটি কবুতর আটক করার দাবি করেছিল বিএসএফ। কবুতরটির পা থেকে ছোট্ট কাগজে লেখা নোট পাওয়া গেছে। তাতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

কবুতরের সঙ্গে পাওয়া নোটে উর্দুতে লেখা ছিল, ‘মোদি, আমরা ১৯৭১ সালের মানুষদের মতো নই। এখন প্রতিটি শিশু ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে প্রস্তুত।’ ওই নোটে লস্কর-ই-তাইয়েবা নামে সংগঠনের কথা উল্লেখ ছিল।

তবে সীমান্তে কবুতর বা বাজপাখি পাওয়ার এটাই প্রথম অভিজ্ঞতা নয় ভারতের। গত বছর সীমান্ত এলাকায় ক্যামেরার ক্ষুদ্র যন্ত্রাংশ শরীরে বাঁধা অবস্থায় একটি কবুতর আটক করে পুলিশ। ২০১০ সালেও ‘গোয়েন্দাগিরির’ অভিযোগে একটি কবুতরকে আটক করেছিল পুলিশ।

২০১৩ সালে সীমান্ত এলাকা গলায় ক্যামেরা বাঁধা একটি বাজপাখি উদ্ধার করে বিএসএফ। তবে সেই বাজপাখিটি জীবিত ছিল না।

সম্প্রতি কাশ্মীর নিয়ে ভারত ও পাকিস্তান এখন উত্তপ্ত। গত মাসে উরি সীমান্তে এক হামলায় ১৯ জন ভারতীয় সেনাসদস্য নিহত হয়। এরপর কাশ্মীর নিয়ন্ত্রিত রেখা এলাকায় ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ নামে অভিযান চালায় বলে জানায় ভারত। এর পর থেকেই দুই দেশের সীমান্তেই উত্তপ্ত অবস্থা বিরাজ করছে।