মেইন ম্যেনু

কারা থাকছেন ট্রাম্পের নতুন সরকারে?

tramp-smile_30129_1478669021

ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর তার নতুন সরকারে কারা থাকছেন তা নিয়ে জল্পনা চলছে এখন।

ট্রাম্পকে অন্তত চার হাজার শূন্য পদে নিয়োগ দিতে হবে। এর মধ্যে বেশ গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদ রয়েছে। নির্বাচনী প্রচারকালে ট্রাম্পের নিজ দল রিপাবলিকান পার্টির অনেকেই তাকে সমর্থন করেননি।

ফলে ধারণা করা হচ্ছে সরকার গঠনে গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে ট্রাম্প তার ঘনিষ্ঠজনদের প্রাধান্য দেবেন।

নতুন কেবিনেট ও হোয়াইট হাউসের গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোর জন্য প্রার্থী বাছাই শুরু করেছেন ট্রাম্প। বুধবার থেকেই ট্রাম্প এ কাজ শুরু করেছেন বলে জানিয়েছেন তার প্রচার দলের উপদেষ্টারা।

মন্ত্রিসভার সদস্য এবং উপদেষ্টা হিসেবে সম্ভাব্য যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন- নিউইয়র্কের সাবেক মেয়র রুডি গিউলিয়ানি, সাবেক স্পিকার নিউট গিংরিচ, অ্যলাবামার সিনেটর জেফ সেশনস, ট্রাম্পের ন্যাশনাল ফাইন্যান্স চেয়ারম্যান স্টিভেন নুচিন, নিউ জার্সির গর্ভনর ক্রিস ক্রিস্টি ।

এর মধ্যে চিফ অব স্টাফ হিসেবে জুলিয়ানি, ক্রিস্টি ও গিংরিচ ছাড়াও যে ব্যক্তির নাম উঠে আসছে তিনি হলেন রিপাবলিকান ন্যাশনাল কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান রাইন্স প্রিবাস।

রুডি গিউলিয়ানিকে নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী কিংবা মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা- সিআইএর পরিচালক করা হতে পারে।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে বিবেচনা হরা হচ্ছে অ্যালাবামার সিনেটর জেফ সেশনসকে। তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবেও স্থান পেতে পারেন জেফ।

এ ছাড়া এ পদে নিউট গিংরিচ, আমেরিকান এন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউটের সিনিয়র ফেলো জন বোল্টন, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের সাবেক কর্মকর্তা রিচার্ড হ্যাস এবং টেনেসির সিনেটর বব কোরকারের নামও শোনা যাচ্ছে।

জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হিসেবে ডিফেন্স ইনটেলিজেন্স এজেন্সির প্রাক্তন পরিচালক মাইকেল ফ্লিয়েনের নাম শোনা যাচ্ছে। ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্সের সহকারী পরিচালক হিসেবে ইরাক ও আফগানিস্তানে কাজ করেছেন তিনি।