মেইন ম্যেনু

কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক, স্বীকার করলেন নারী

কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের কথা আদালতে স্বীকার করলেন অস্ট্রেলিয়ার এক নারী। ২৭ বছর বয়সী ওই নারীর নাম জেনা লুইস ড্রিসকো। এ ঘটনায় তাঁর কারাদণ্ড হতে পারে।

জেনা অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড প্রদেশের ব্রিসবেন শহরের বাসিন্দা। চলতি বছরের আগস্টে জেনার বিরুদ্ধে তাঁর পোষা কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনসহ চারটি অভিযোগ আনা হয়। তিনি বিচারকের সামনে এ অভিযোগগুলো স্বীকার করেছেন।

স্থানীয় সময় আজ শুক্রবার জেনাকে ব্রিসবেন জেলা আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় সেখানে তাঁর পক্ষের আইনজীবী জেমস গডবোল্ট উপস্থিত ছিলেন।

আইনজীবী জেমস গডবোল্ট বলেন, জেনাকে প্রকাশ্যে লজ্জা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া জেনা তাঁর প্রেমিকের অনুরোধেই কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন।

বিচারক টেরি মার্টিন উপস্থিতিতে জেনা আরো স্বীকার করেন, তিনি একজনের শরীরে কাঁটাচামচ ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন ও এক শিশুকে কামড় দিয়েছিলেন। এ ছাড়া তিনি মাদকদ্রব্য চোরাচালানের সঙ্গেও জড়িত।

২০১৪ সালে মাদক চোরাচালান বিষয়ে অনুসন্ধান চালানোর সময় জেনার মোবাইলে তিনটি আপত্তিকর ভিডিও পায় পুলিশ। এরপর বিষয়টি আদালতে নিষ্পত্তির জন্য তোলা হয়।

সে সময় আদালতের এক শুনানিতে একটি ছবি উপস্থাপন করা হয়। ছবিটিতে দেখা যায়, জেনা একজন অপরিচিত ব্যক্তি ও একটি পোষা কুকুরের সঙ্গে বাড়িতে ঢুকছেন।

স্থানীয়রা জানান, জেনা ওই ব্যক্তি আর কুকুরটির সঙ্গে খুব অল্প সময় বাড়িতে ছিলেন। পরে তাঁরা একটি গাড়িতে করে স্থান ত্যাগ করেন।