মেইন ম্যেনু

কোহলি, নেহরাদের সাফল্যের পিছনে নাকি ‘খুনী, ধর্ষকের’ অবদান অনেক!

virat-kohli20160824190941

তিনি একাধারে ধর্মোপদেষ্টা, আধ্যাত্মিক গুরু, আবার অন্যদিকে অভিনেতা। সেই গুরমীত রাম রহিম সিংহ সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমের কাছে দাবি করেছেন, ভারতের বহু বিখ্যাত ব্যক্তিত্বকে জীবনের সঠিক লক্ষ্যে এগিয়ে দিতে নাকি তাঁর অশেষ অবদান রয়েছে। অলিম্পিক্সে পদকজয়ী বিজেন্দ্র সিংহ থেকে শুরু করে ভারতের বর্তমান টেস্ট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলিও সেই তালিকায় রয়েছেন, যাঁরা একদা তাঁর শরণাপন্ন হয়েছিলেন। আশিষ নেহরা, শিখর ধবন-এর মতো জনপ্রিয় ক্রিকেটারও একসময় তাঁর কাছে এসেছেন শুধুমাত্র নিজেদের উজ্জীবিত করতে। অথচ এই সমস্ত জনপ্রিয় ক্রীড়াবিদের মুখে কখনও তাঁর নাম শোনা যায়নি। তাঁদের সাফল্যের পিছনে থাকা মানুষগুলোর কথা বহুবারই বলেছেন এঁরা, কিন্তু এই ধর্মোপদেষ্টা চিরকাল আড়ালেই রয়ে গিয়েছেন। তবে কি তাঁর এই দাবি সম্পূর্ণ ভুয়ো?

এমনটা মেনে নেওয়াই যেত যদি না কিছু ভিডিও তিনি প্রকাশ্যে আনতেন। গুরমীত সিংহ সম্প্রতি কিছু ভিডিও প্রকাশ করেছেন, যেখানে দেখা যাচ্ছে, তরুণ কোহলি এবং নেহরা তাঁর সভায় বসে বক্তৃতা শুনছেন। সেখানে উপস্থিত রয়েছেন আশিষ নেহরাসহ দিল্লি রঞ্জি টিমের অনেক খেলোয়ারই।

অন্য আর একটি ভিডিও-য় আবার দেখা যাচ্ছে, শ্রোতাদের মধ্যে থাকা একজন উঠে তাঁকে জিজ্ঞেস করছেন, কেন এই সব ক্রিকেটার তাঁদের সাফল্যের কথা বলার সময় গুরমীত-এর নাম উল্লেখ করেন না? এর উত্তরে তিনি অবশ্য জানিয়েছেন যে, তাঁরা তাঁর কথা বলুন, বা না বলুন, এতে কিছু যায় আসে না। তবে তাঁর স্পষ্ট মনে রয়েছে, কীভাবে তরুণ কোহলি তাঁর কাছে এসে সাহায্য চেয়েছিলেন। এছাড়া, তাঁর প্রচারের উদ্দেশ্য মূলত সমাজের কল্যাণসাধন। সেটা তিনি করতে পারলেই সন্তুষ্ট।

এরপরে তিনি এ-ও দাবি করেছেন, তাঁর সংগ্রহে আরও অনেক ভিডিও রয়েছে, যেগুলির সাহায্যে তিনি প্রমাণ করতে পারেন যে, তাঁর দাবি কোনও অংশে মিথ্যে নয়।

ডেরা সাচ্চা সওদা গোষ্ঠীর প্রধান গুরু গুরমীত সিংহ-র বিরুদ্ধে সিরসায় গোষ্ঠীর সদর দফতরে মহিলা ভক্তদের ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছিল কিছুদিন আগেই। শুধু তাই নয়, দুই সাংবাদিকের হত্যার চক্রান্তেও জড়িয়েছে তাঁর নাম। বুঝুন ঠ্যালা, এহেন ব্যক্তি দাবি করছেন, কোহলি, নেহরা, বিজেন্দ্র-দের উত্থানের নেপথ্যে নাকি রয়েছেন তিনি। অথচ ভিডিও-ই সব হিসেব গোলমাল করে দিচ্ছে।