মেইন ম্যেনু

ক্যাফেইন সমৃদ্ধ পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকার উপায়

lemon-essential-oil

চা, কফি বা কোমল পানীয়ের মত জনপ্রিয় ক্যাফেইন সমৃদ্ধ পানীয়গুলো থেকে নিজেকে বিরত রাখা আসলেই কঠিন কাজ। ক্যাফেইন নিয়েই সবচেয়ে বেশি গবেষণা হয়েছে এই পর্যন্ত। এর উপকারী দিক যেমন আছে তেমনি অপকারিতাও আছে। তাই এটি গ্রহণ করতে হয় সংযমের সাথে। যত বেশি গ্রহণ করা হয় আমাদের শরীর এর প্রতি তত সহনশীল হয়ে উঠে। যদি সচেতন না হন তাহলে আপনার এড্রেনাল গ্ল্যান্ড ওভারলোড হয়ে যেতে পারে এবং আপনি ক্লান্তির একটি চক্রের মধ্যে আটকে যেতে পারেন। এছাড়াও ক্যাফেইন ঘুমের মানের উপর ও প্রভাব ফেলতে পারে। ক্যাফেইন সমৃদ্ধ পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকার উপায় নিয়েই আজকের এই ফিচার।

১। লেমন এসেনশিয়াল অয়েল

দুপুরে যখন শর্করা জাতীয় খাবার খাওয়া হয় তখন মস্তিষ্কে সুখি হরমোন সেরেটোনিন নিঃসৃত হয়। ঠিক তেমনি নিজেকে উদ্দীপ্ত করার জন্য বা স্বস্তি পাওয়ার জন্য আমরা কফি পান করি। সেরেটোনিনের মাত্রা প্রাকৃতিক ভাবেই বৃদ্ধি করা যায়। মেজাজের উন্নতি ঘটানোর জন্য লেমন এসেনশিয়াল অয়েলের ঘ্রাণ শুঁকতে পারেন।

২। মিষ্টি কুমড়ার বীজ এবং কাঠ বাদাম

দুপুরের পরে একমুঠো প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার যেমন- মিষ্টি কুমড়ার বীজ বা কাঠ বাদাম খেলে আপনাকে শক্তি যোগাবে যার ফলে সন্ধ্যায় কফি খাওয়া এড়িয়ে যেতে পারবেন। দুপুরে চর্বিহীন প্রোটিন যেমন – মাছ খেলেও ক্ষুধা কম লাগে ও ক্যাফেইন পানের ইচ্ছে কমে।

৩। পানি

সারাদিনে প্রচুর পানি পান করলে ক্ষুধা ও ক্যাফেইনের তৃষ্ণা কম লাগবে। তাই বেশি বেশি পানি পান করুন। এছাড়াও ক্যাফেইন সমৃদ্ধ পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকতে লেবুর জুস পান করতে পারেন।

৪। ময়ূরাসন

অফিসের এমন একটি স্থান খুঁজে নিন যেখানে ময়ূরাসন যোগব্যায়ামটি করতে পারেন। যদি আপনার রক্তসংবহন তন্ত্র এবং পরিপাক তন্ত্র সঠিক ভাবে কাজ করে তাহলে বাহ্যিক উদ্দীপক খুব কমই প্রয়োজন হবে। ময়ূরাসন যোগব্যায়ামটি করলে আপনার রক্তসংবহন তন্ত্র এবং পরিপাক তন্ত্র সঠিক ভাবে কাজ করবে।

৫। ভালো ঘুম

ক্লান্তি দূর করার জন্যই ক্যাফেইন সমৃদ্ধ পানীয় পান করে মানুষ। আপনার যদি ভালো ঘুম হয় তাহলে ক্লান্তি অনুভব করবেন না আপনি। নিয়মিত ব্যায়াম করলে ভালো ঘুম হয়।