মেইন ম্যেনু

গণতন্ত্রে বিশ্বাস করলে আলোচনায় বসতেই হবে

গণতন্ত্রে বিশ্বাস করলে আগামী জাতীয় নির্বাচন সামনে রেখে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সরকারকে আলোচনায় বসতেই হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতায় না পৌঁছালে নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ হবে না বলেও মনে করেন তিনি।

জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৩৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের নেতাকর্মীদের নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাতে যান বিএনপি মহাসচিব। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাম্প্রতিক রাজনৈতিক বিষয়ে নিয়ে কথা বলেন তিনি।

আগামী নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সঙ্গে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয় মির্জা ফখরুলের কাছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নতুন নির্বাচিত হয়েছেন (ওবায়দুল কাদের)। স্বাভাবিকভাবেই তাঁর উদ্যম অনেক বেশি থাকার কথা। সেই জন্য তিনি সম্ভবত আগাম এই বক্তব্য দিয়েছেন।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘বরাবরই তারা (আওয়ামী লীগ) করে এসেছেন, শেষ মুহূর্তে তারা আলোচনা করার জন্য ডাকও দেন। গতবার আমরা দেখেছি, ২০১৪ সালের আগে তারা বলেছিলেন আলোচনা করবেন না, কিন্তু তারপর আলোচনার জন্য ডেকেছেন। আসলে যদি সত্যিকার অর্থে তারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেন, রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই। সমঝোতামূলক পথ বের না করলে এই নির্বাচন কখনো সুষ্ঠু, অবাধ হবে না।’

ইতালির নাগরিক তাবেলা সিজার হত্যাকাণ্ড নিয়ে র্যাব ও পুলিশের পরস্পরবিরোধী বক্তব্য নিয়েও কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘সরকারের যে দোদুল্যমানতা, স্ববিরোধিতা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিজেদের মধ্যে যে স্ববিরোধিতা; এটাতেই প্রমাণ করে যে বাংলাদেশে কোনো আইনের শাসন নেই। এখানে আমরা যে কথা বরাবরই বলে আসছি, এই সরকার নিজেরাই সন্ত্রাস সৃষ্টি করে, সেই সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে তারা বিরোধীপক্ষকে দমন করতে চায়।’