মেইন ম্যেনু

গাছের পাতায় বাঁচলো তিন প্রান

বলা হয়ে থাকে সব ঘটনার পেছনে নাকি কোন না কোন উসিলার প্রয়োজন হয়। আর জীবন যেহেতু সবচেয়ে মুল্যবান তার থাকা না থাকার পেছনের উসিলা বড় হওয়ারই কথা। তবে সে ধারনাটাই যে ভুল প্রমানিত হল এবার। তিনজন মানুষ প্রানে বাচলেন ঠুনকো পাতাকে অবলম্বন করে।

গাছের পাতা আর নিজেদের বুদ্ধিমত্তায় প্রাণে বাঁচলেন নির্জন দ্বীপে আটকে পড়া তিন নাবিক। প্রশান্ত মহাসাগরের মাইক্রোনেশিয়া দ্বীপপুঞ্জের ফানাডিক দ্বীপে আটকে পড়েছিলেন তারা।

প্রাণ এবার যাচ্ছে বলে ভাবতে শুরু করেছিলেন তারা। মৃত্যুশঙ্কায় তাদের মগজে অভিনব এক অাইডিয়া আসে। পাম গাছের একটি পাতায় ‘হেল্প’ লিখে সাগরে তা ভাসিয়ে দেন তারা। এ অাইডিয়া কাজে লেগে যায়। অবশেষে তাদের উদ্ধারে এগিয়ে আসে মার্কিন নৌবাহিনী। মরতে মরতে বেঁচে যান।

মাইক্রোনেশিয়া থেকে রওনা দেয়ার পর বড় বড় ঢেউয়ের কবলে পড়ে দ্বীপটির কাছাকাছি সমুদ্র এলাকায় ডুবে যায় ওই তিন নাবিককে বহনকারী নৌকাটি। এরপর তারা সারারাত সাঁতরে দ্বীপটিতে এসে ওঠেন। এদিকে, তিন নাবিকের নিখোঁজের খবর জানতে পেরে তল্লাশি শুরু করে মার্কিন নৌবাহিনী। পাম গাছের পাতায় ‘হেল্প’ লেখা দেখে নিখোঁজ নাবিকরা ধারেকাছে কোথাও আছেন বলে তাদের সন্দেহ হয়। পরে খুঁজতে বের হয়ে তাদের সন্ধান পান। একেই বলে সৃষ্টিকর্তা রাখলে মারে কে!