মেইন ম্যেনু

গাবতলীতে আটক ব্যক্তি পশ্চিমবঙ্গের অস্ত্র ব্যবসায়ী

e1e927f687eeadb5e1824eb724cb6733-5818465ed4589

রাজধানীর দারুসসালাম থানাধীন গাবতলী বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে আটক খাইরুল ইসলাম ভারতের পশ্চিমবঙ্গের অস্ত্র ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের সদস্য। বাংলাদেশের একটি নির্দিষ্ট শ্রেণির কাছে অস্ত্র বিক্রির উদ্দেশে তিনি বাংলাদেশে অবস্থান করছিলেন। খাইরুলের বিক্রি করা অস্ত্র সন্ত্রাসী কার্যক্রমে ব্যবহৃত হচ্ছে।

মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ১টায় ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান যুগ্ম কমিশনার (ডিবি) আব্দুল বাতেন।

এর আগে, সোমবার দিবাগত রাতে ১০টি অস্ত্র, ৩৫টি বুলেট এবং ১২টি ম্যাগজিনসহ ভারতীয় অস্ত্র ব্যবসায়ী খাইরুল ইসলাম মন্ডল ওরফে শরিফুল ইসলাম ওরফে শরিফুলকে আটক করে ডিএমপি’র গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগের বিমানবন্দর জোনাল টিম।

আব্দুল বাতেন বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামি পেশাদার অস্ত্র ব্যবসায়ী। তিনি অবৈধভাবে বাংলাদেশের বেনাপোল সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশ করেন।
জিজ্ঞাসাবাদে খাইরুল জানিয়েছেন, তিনি বাংলাদেশ ও ভারতের একটি সন্ত্রাসী গ্রুপের যোগসাজশে ভারত হয়ে বাংলাদেশে অস্ত্র বিক্রি করেন।

কিভাবে অস্ত্র বাংলাদেশে প্রবেশ করছে জানতে চাইলে যুগ্ম কমিশনার (ডিবি) বলেন, ভারতীয় ব্যবসায়ীরা বিহার থেকে বালুর ট্রাকে করে অবৈধ অস্ত্র পশ্চিমবঙ্গের আস্তানায় নিয়ে আসে। এরপর সুযোগ বুঝে বেনাপোল সীমান্ত হয়ে বাংলাদেশে অস্ত্রের চালান পৌঁছে দেয় গ্রুপটি।

কোন কাজে কারা এই অস্ত্র কিনছে জানতে চাইলে আব্দুল বাতেন বলেন, খাইরুল পশ্চিমবঙ্গের অস্ত্র ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের একজন সদস্য। তিনি বাংলাদেশে নির্দিষ্ট শ্রেণির মানুষের কাছে অস্ত্র বিক্রি করেন। বিক্রি করা অস্ত্র বাংলাদেশে সন্ত্রাসী কার্যক্রমে ব্যবহৃত হয় বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ডিএমপির গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি দক্ষিণ) উপ-কমিশনার (ডিসি) মাশরুকুর খালেদ, (ডিবি পূর্ব) উপ-কমিশনার (ডিসি) খন্দকার নুরুন্নবী চৌধুরী ও ডিসি মিডিয়া মাসুদুর রহমান।