মেইন ম্যেনু

ঘরেই তৈরি করুন দোকানের মত ডিওডোরেন্ট

অনেকে আছেন যাদের সব সময় ঘাম হয়ে থাকে। আবার অনেকের ঘামে মারাত্নক দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে। ঘামের দুর্গন্ধ দূর করতে বডি স্প্রে বা ডিওডোরেন্ট ব্যবহার করা হয়। বাজারে বডি স্প্রে বা ডিওডোরেন্ট কিছু সময়ের জন্য দুর্গন্ধ দূর করে। কিন্তু দীর্ঘ সময়ের জন্য তেমন কার্যকর হয় না। আবার বাজারের ডিওডোরেন্টে থাকা রাসায়নিক পদার্থ রয়েছে যা খুব সহজেই দেহের ত্বক ভেদ করে ভেতরে প্রবেশ করে, ত্বকের জ্বালাপোড়া থেকে শুরু করে ক্যান্সারেরও সৃষ্টি করতে পারে। কারণ এসব প্রোডাক্টগুলোতে অ্যালুমিনিয়াম থাকে যা ঘামের ছিদ্রগুলো আটকে দিয়ে ঘাম হওয়াকে প্রতিরোধ করে। এই অ্যালুমিনিয়াম একটি বিষাক্ত পদার্থ যা আপনার দেহ থেকে শুধু ক্যালসিয়ামই সরিয়ে দেবে না বরং এটা আপনার দেহের এন্ডোক্রাইন ও লিম্ফোটিক সিস্টেম এর উপর বিপদজনক প্রভাব ফেলে যা ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে।

তাই বাজারে প্রচলিত ডিওডোরেন্ট ব্যবহার করার পরিবর্তে ঘরে তৈরি করে নিতে পারেন পছন্দ মত ডিওডোরেন্ট।

যা যা লাগবে:

১/৩ কাপ নারকেল তেল

৩ টেবিল চামচ মোম

২ টেবিল চামচ শিয়া বাটার

১/৩ কাপ কর্ণস্টার্চ

১ টেবিল চামচ বেকিং সোডা

১০-১৫ ফোঁটা এসেনশিয়াল অয়েল

প্রণালী:

১। একটি পাত্রে তিন টেবিল চামচ মোম কুচি করে চুলায় দিন।

২। এর সাথে দুই টেবিল চামচ শিয়া বাটার মেশান।

৩। এতে ১/৩ কাপ নারকেল তেল মিশিয়ে নিন।

৪। মোম, শিয়া বাটার এবং নারকেল তেল একসাথে ভাল করে মিশিয়ে নিন।

৫। সবগুলো উপাদান একসাথে গলে গেলে এতে কর্ণস্টার্চ মিশিয়ে নিন।

৬। এতে আপনার পছন্দের এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিন।

৭। এবার ডিওডোরেন্ট রাখার বক্সে মিশ্রণটি ঢালুন।

৮। এটি ফ্রিজে অথবা ঠান্ডা স্থানে রাখুন কয়েক ঘন্টার জন্য।

৯। এটি এক মাস পর্যন্ত সংরক্ষণ করতে পারবেন।

টিপস:

১। সংবেদনশীল ত্বকের ক্ষেত্রে বেকিং সোডা অল্প ব্যবহার করুন। অথবা এটি ব্যবহার করা বাদ দিয়ে দিন।

২। এটি শরীরে ব্যবহার করার পর কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন শুকানোর জন্য।