মেইন ম্যেনু

ঘূর্ণিঝড় কায়ান্টের প্রভাবে বৃষ্টি ঝরছে

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্ট’ সামান্য পশ্চিম, দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই বৃষ্টি হচ্ছে।

এদিকে রাজধানীতে খুব সকালে বৃষ্টির কারণে বিপাকে পড়েছেন অফিসগামী মানুষ ও স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীরা। সকালে বৃষ্টির কারণে যানবাহন না পাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েন তারা।

বেসরকারি চাকরিজীবী আহসান বলেন, ৩০ মিনিট অপেক্ষা করেও কোনো গাড়ি পাচ্ছি না। সিনএজি অটোরিকশা দ্বিগুণ ভাড়া চাচ্ছে। অফিস যেতে হবে সঠিক সময়ে তাই বাধ্য হয়ে দ্বিগুণ ভাড়া দিয়ে সিএনজিতেই যাচ্ছি।

আবহাওয়া অধিদফতরের কর্মকর্তা আবদুল বারেক বলেন, ঢাকায় ১৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনায় সর্বোচ্চ ১৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। এছাড়া ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সাগর উত্তাল রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দুর্বল হয়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড় কায়ান্ট। ফলে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বাংলাদেশের কোথাও ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। তবে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগ ছাড়া দেশের সর্বত্র কমবেশি বৃষ্টি হচ্ছে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদফতর বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানায়, পূর্ব মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় কায়ান্ট সামান্য দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে বুধবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত একই এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরও ঘনীভূত হয়ে পশ্চিম-দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগে অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।