মেইন ম্যেনু

ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্টে’ উত্তাল সাগর, বৃষ্টির শঙ্কা

পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তার আশপাশের এলাকায় অবস্থান করা ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্ট’ সামান্য পশ্চিম দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এর প্রভাবে সমুদ্র উত্তাল হয়ে উঠেছে। ফলে সমুদ্র বন্দরগুলোকে দুই নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এ ছাড়া আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, এর প্রভাবে দেশের কিছু কিছু স্থানে বৃষ্টি হতে পারে। আকাশ মেঘলা থাকবে।

মঙ্গলবার ভোর ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে ৫৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে, মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৬৪০ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ৫৯০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। এটি আরো ঘণীভূত হয়ে পশ্চিম দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্টের’ কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে দুই নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করা সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, এ ছাড়া আজ বুধবার সকাল ৯টা থেকে আগামী ৭২ ঘণ্টায় আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। দেশের অন্যত্র আকাশ অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

আবহাওয়ার দৃশ্যপটের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি পশ্চিম দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘণীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্টে’ পরিণত হয়ে আজ সকাল ৬টায় একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরো ঘণীভূত হয়ে পশ্চিম দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।