মেইন ম্যেনু

জাতীয় অধ্যাপক ডা. এম আর খান আর নেই

dd

জাতীয় অধ্যাপক ও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ এম আর খান আর নেই। শনিবার বিকালে রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন তিনি। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর।

সেন্ট্রাল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এ কথা নিশ্চিত করেছেন।

সজ্জন চিকিৎসক এম আর খান কোমর ব্যথা,হৃদরোগ,উচ্চ রক্তচাপ, নিউমোনিয়াসহ বার্ধক্যজনিত সমস্যায় বেশ কয়েক মাস ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিছুদিন আগে তার কোমরে অস্ত্রেপচার করা হয়।

তার শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় গত ২৯ সেপ্টেম্বর তাকে আইসিইউতে (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) স্থানান্তর করা হয়।

এম আর খান নামে বহুল পরিচিত এই শিশুরোগ বিশেষজ্ঞের পুরো নাম মো. রফি খান। ১৯২৮ সালের ১ আগস্ট সাতক্ষীরায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। বাংলাদেশে শিশু চিকিৎসার অন্যতম পথিকৃৎ ডা. এম আর খান জাতীয় অধ্যাপক হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। তিনি দুস্থ,দরিদ্র মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবায় প্রতিষ্ঠা করেছেন ডা. এম আর খান-আনোয়ারা ট্রাস্ট।

জাতীয় পর্যায়ে শিশুস্বাস্থ্য ফাউন্ডেশন ছাড়াও শিশুস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতল,ঢাকা সেন্ট্রাল হাসপাতাল,উত্তরা উইমেন্স মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল,যশোর শিশু হাসপাতাল,সাতক্ষীরা শিশু হাসপাতালসহ অনেক প্রতিষ্ঠান স্থাপনের ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন এম আর খান।

চিকিৎসার মাধ্যমে দেশসেবায় অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ পেয়েছেন একুশে পদক, স্বাধীনতা পুরস্কার, ইন্টারন্যাশনাল ম্যানিলা অ্যাওয়ার্ডসহ অসংখ্য পুরস্কার।

এ ছাড়া শিক্ষা, চিকিৎসা, শিশুস্বাস্থ্য সুরক্ষা,দুর্গত অসহায় মানুষের সেবাসহ সমাজকল্যাণমূলক কাজে অসামান্য অবদান রাখায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) ডা. এম আর খানকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি দিয়েছে। বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি তাকে ভূষিত করেছে স্বর্ণপদকে।

এম আর খানের জানাজা ও দাফন কোথায় হবে সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।