মেইন ম্যেনু

চিরিরবন্দরে নতুন এসিল্যান্ড যোগদানে ভূমি অফিসের চিত্র পাল্টে গেছে

মোহাম্মাদ মানিক হোসেন, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: বর্তমান সরকারের রূপকল্প ২০২১ ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়ন এর ধারাবাহকিতায়, দেশব্যাপী ভূমি রের্কড ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন সহ মিউটেশন,মসি-মোকদ্দমা প্রভৃতি সম্পাদনের ক্ষত্রে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহাররে পাশাপাশি দ্রুত সেবা দানের লক্ষ্যে নিরালস কাজ করে যাচ্ছেন ।

দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলা সহকারী কমশিনার ভূমি । সকল অনিয়ম দুর করে উপজেলা ভূমি অফিসকে ঢেলে সাজিয়েছেন। তনি মাস আগে যোগদান করা বর্তমান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তা, মো: মাশফাকুর রহমান এর নিরলস প্রচেষ্টায় অত্র উপজেলা ভূমি অফিসের উন্নয়ন সহ সার্বিক কর্মকান্ডে ফিরে এসেছে সচ্ছলতা ও গতিশীলতা এবং জনসেবার মান উন্নয়ন বেড়েছে।

দীর্ঘ দিনের এই অনিয়ম ও দুনীতির বেড়াজাল ছিন্ন করে আন্তরিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছে বর্তমান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তাঁর সততা ও নিষ্ঠার কারণে উপজেলা ভূমি অফিস আজ প্রাণ ফিরে পেয়েছে। ভূমি অফিসে প্রতিটি কক্ষে সি.সি ক্যামরা স্থাপন,ইন্টারকম, নথিতে ডিজিটাল নাম্বার প্রদান, মোবাইল এ নোটশি জারী, সবো র্প্রাথীদরে বসার জন্য গোল আধুনিক ডিজাইনে গোল ঘর নির্মান, ,বাইক শেড নির্মান, সকল সহকারী এবং ইউনয়িন ভূমি সহকারী র্কমর্কতাদরে জন্য অফিসিয়াল মোবাইল ফোন নম্বর সরবরাহ, সকল র্কমর্কতা র্কমচারীদরে জন্য কম্পউিটার প্রশক্ষিণ সহ আরও বেশ কিছু উন্নয়ন র্কমকান্ড ইতোমধ্যেই শেষ হতে চলছে।

১২টি ইউনিয়নে প্রায় ১ হাজার ৫০০ রেজিস্টার বাঁধাই কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে মর্মে জানা গেছে। জন সাধারনের ভোগান্তি কমাতে রের্কডরুম সুবিন্যস্ত করা হয়ছে। বছর ভিত্তিক প্রায় ১৩ বছররে খারিজ নথি সহ মেস কেস নথি সাজানো হয়ছে। স্থানীয় এলাকাবাসী ও কর্মচারী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা ভূমি অফিসের কর্মকান্ড চলে আসছে গতানুগতিক ভাবে। এতদিন কর্মচারীদের কাজে ছিল না কোন কর্ম ব্যস্ততা। জনসেবার মান ছিল নিম্নমানের। উপজেলা ভূমি অফিস ও ইউনিয়ন ভূমি অফিসগুলো চলত কর্মচারীদের ইচ্ছার উপর।

এছাড়া উপজেলা ভূমি অফিস ও ইউনিয়ন ভূমি অফিস গুলোতে চলতো খোলামেলা ঘুষ বাণিজ্য। বিরাজমান এই অনিয়মের আখড়া উচ্ছেদ করে উপজেলা ভূমি অফিসকে সুশৃঙ্খল পরিবেশ ঢেলে সাজ নো বর্তমান সহকারী কমিশনার (ভূমি)। জমির খাজনা, নামজারী, মিস কেস সহ অন্যান্য কার্যক্রমে কোন মানুষ হয়রানির শিকার না হয় সে দিকে নিয়মত নজর দারী রাখছেন তিনি এবং দ্রুত কাজ সমাধান করে যাচ্ছেন। কঠোর তৎপরতার মুখে অফিসগুলোতে যেমন জনসেবার মান বেড়েছে তেমনি তাদের নানা কর্মকান্ডে ফিরে এসেছে স্বচ্ছলতা ও গতিশীলতা।

ইউনিয়ন ভূমি অফিসের বিভিন্ন কাজে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর উপর ভরসা না করে সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিজেই তদারকি করেন। সারদিন যখনি কোন লোক কাজে তাঁর শরণাপন্ন হন তখনই খুব আন্তরিকতার সাথে তাঁদের কথা শুনেন এবং তড়িৎ ব্যবস্থা নেন। ফলে তার কঠোরতার মুখে কোন কোন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা তাঁর প্রতি কিছুটা অসন্তুষ্ট বলে জানা গিয়েছে। অনুসন্ধানের জরিপে এসব তথ্য উদঘাটিত হয়। নিয়মিত মাসিক মিটিংয়ে তিনি ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারী সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে সততা, নিষ্ঠা ও সাহসিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন। এবং কারো কাজে গাফিলাতি ও অনিয়ম অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন। ফলে, দুনীর্তিবাজ ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা তার প্রতি কিছুটা ক্ষুব্ধ ।

স্থানীয় বাসন্দিা ও কর্মচারীরা বর্তমান এই কর্মকান্ডকে এক যুগাšতকারী সাহসী পদক্ষেপ হিসাবে আখ্যায়িত করেছেন। এ ব্যাপারে চিরিরবন্দর উপজেলা ভূমি অফিসে কমরত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মচারীর সাথে আলাপ কালে তিনি জানান, স্যার সরকারী আইনের বাইরে কোন কাজ করেন না। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আজ উপজেলা ভূমি অফিস প্রাণ ফিরে পেয়েছে। তিনি সরকারী নীতিমালার আলোকে জনকল্যাণের কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে সাহসের সাথে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। তবে সকলের সহযোগিতা পেলে আরো ভালো কিছু সম্ভব।