মেইন ম্যেনু

জাতীয় স্মৃতিসৌধে শপথবাক্য পাঠের মধ্যদিয়ে নবীনদের উচ্চশিক্ষায় যাত্রা শুরু

gono uni pic

বিধান মুখার্জী, গণ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে শপথবাক্য পাঠের মধ্য দিয়ে উচ্চশিক্ষায় যাত্রা শুরু করলো গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স কোর্সের অক্টোবর (২০১৬-২০১৭) সেশনের নবাগত শিক্ষার্থীরা। ২২ নভেম্বর (মঙ্গলবার) সকালে স্মৃতিসৌধে নবীন শিক্ষার্থীদের দেশ ও জাতি গঠনে পথ নির্দেশক সাতটি শপথ বাক্য পাঠ করান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. দেলওয়ার হোসেন।

শপথগ্রহণ শেষে গণবিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে শিক্ষার্থীদের অরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গণবিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. দেলওয়ার হোসেন। সভাপতি উচ্চশিক্ষায় আগ্রহীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, “প্রতিটি শিক্ষার্থীকে স্বাধীন চিন্তা চেতনার মধ্য দিয়ে অধ্যয়ন করে সমাজে নিজেকে সুপ্রতিষ্ঠিত করতে হবে। সেই সঙ্গে দেশ ও জাতির সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে হবে। কেননা পরিবারের কাছে সমাজের কাছে তার দায়বদ্ধতা রয়েছে”। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম শৃঙ্খলা সমুন্নত রাখতে শিক্ষার্থীদের প্রতি আহবান জানান রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, গণ বিশ্ববিদ্যালয় একটি ব্যতিক্রমর্ধী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এখানে মাদক ও ধূমপানকে কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া তথাকথিত র‌্যাগের নামে নবাগত শিক্ষার্থীদের হয়রানি না করতে সকল শিক্ষার্থীকে নির্দেশ দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক মেসবাহউদ্দিন আহমেদ, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. এম নজরুল ইসলাম, ভৌত ও গাণিতিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. হাসিন অনুপমা আজহারী, গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. লায়লা পারভীন বানু, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মুর্ত্তজা আলীসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রধানগণ বক্তব্য রাখেন।

উল্লেখ্য যে, ১৯৯৮ সালে সাধারণ মানুষের সার্বিক কল্যাণ সাধন ও সমাজ সচেতন উচ্চশিক্ষা প্রসারের ব্রত নিয়ে কোলাহলমুক্ত প্রাঙ্গণে গড়ে উঠে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গণ বিশ্ববিদ্যালয়। বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয় সাভারে নিজস্ব প্রায় ২৫ একর জমির উপর নির্মিত ক্যাম্পাসে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। গণ বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত হয় দেশের বরেণ্য শিক্ষাবিদদের সমন্বয়ে গঠিত একটি ট্রাস্টি বোর্ডের মাধ্যমে।