মেইন ম্যেনু

জয়ের পথে আরো এগোলেন হিলারি

hillary20161107115859

আগামীকাল মার্কিন নির্বাচন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে ঘিরে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই নয়, বিশ্বজুড়েই এক ধরনের নির্বাচনী আমেজ বিরাজ করছে। বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশের প্রেসিডেন্ট কে হবেন -তার দিকেই চেয়ে আছে পুরো বিশ্ব।

নির্বাচনের মাত্র একদিন আগে বড় ধরনের ধাক্কা থেকে বেঁচে গেলেন ডেমোক্রেট দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী এবং সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন। হিলারির ই-মেইলের আবার তদন্তে নেমেছিল মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। কিন্তু নতুন এই তদন্তেও কোনো অপরাধের প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে এফবিআই। নির্বাচনের মাত্র একদিন আগে এমন কথা জানিয়েছে সংস্থাটি।

এফবিআইয়ের এমন ঘোষণায় নতুন করে নড়েচড়ে বসেছেন ভোটাররা। হিলারিকে ভোট দেয়ার বিষয়ে আর ভাবতে হচ্ছে না তাদের -এমনটাই মনে করছেন ডেমোক্রেটরা। ২৭০টি ইলেকটোরাল কলেজের ম্যাজিক ফিগার অনায়াসেই টপকে যাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী তারা।

এনবিসি নিউজ ও ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল তাদের চূড়ান্ত জরিপের বরাত দিয়ে বলছে, ৮ নভেম্বরের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড়ে চূড়ান্ত জরিপে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ট্রাম্পের চেয়ে ৪ পয়েন্টে এগিয়ে রয়েছেন হিলারি। এই জরিপে ট্রাম্প ৪০ শতাংশ সমর্থন পেয়েছেন আর হিলারি পেয়েছেন ৪৪ শতাংশ সমর্থন।

এনবিসি নিউজ ও ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এই জরিপে অংশগ্রহণকারীদের ৫২ শতাংশই প্রেসিডেন্ট হিসেবে হিলারি ক্লিনটনকে সমর্থন করছেন। আবার ৪৬ শতাংশই ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন।

তবে এফবিআই নতুন করে ই-মেইল তদন্ত শুরু করার পর হিলারি ও ট্রাম্পের মধ্যে ব্যবধান কিছুটা কমেছে। গত অক্টোবরের মাঝামাঝিতে এনবিসি ও ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক জরিপ অনুযায়ী হিলারির প্রতি সমর্থন ছিল ৪৮ শতাংশ আর ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন ছিল ৩৭ শতাংশ অর্থাৎ তাদের মধ্যে ব্যবধান ছিল ১১ পয়েন্ট। কিন্তু বর্তমানে সেটি কমে দাঁড়িয়েছে মাত্র চার পয়েন্ট।

তবে তীরে এসে তরী ডোবার হাত থেকে তো বাঁচলেন হিলারি। ই-মেইল তদন্ত এখন আর গলার কাঁটা হচ্ছে না তার। কোনো ধরনের বিতর্ক ছাড়াই এখন নির্বাচনে জয়ের পথে রয়েছেন সাবেক এই ফার্স্ট লেডি।