মেইন ম্যেনু

টাইগারদের প্রশংসায় বিশ্ব মিডিয়া

ঐতিহাসিক জয় রচনা করেছে বাংলাদেশের টাইগাররা। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমবারের মত টেস্ট জয়ের স্বাদ পেলো বাংলাদেশ। টাইগারদের হাতে একে একে ধুলিসাৎ হয়ে গেল ইংল্যান্ডের বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানরা। সে যেন এক অন্য রকম জয়, অন্যরকম অনুভূতি।

ঐতিহাসিক এক জয় পেয়েছে বাংলাদেশের টাইগাররা। টাইগারদের হাতে একে একে ধুলিসাৎ হয়ে গেল ইংল্যান্ডের বাঘা বাঘা সব ব্যাটসম্যানরা।

সাকিব আল হাসানের হাতে বেন স্টোকসকের বোল্ড হওয়ার ঘটনাই যেন পুরো ম্যাচটাকে বাংলাদেশের পক্ষে নিয়ে গেলো। পুরো খেলা নিয়ে তখন টানটান উত্তেজনা। স্টোকসকে বোল্ড করেই সটান দাঁড়িয়ে গেলেন সাকিব। একেবারে মিলিটারি ঢংয়ে- সোজা হও ভঙিতে। কপালে হাত ঠেকিয়ে স্যালুট করলেন। এরপর একই ওভারে তুলে নিলেন আরও দুই উইকেট।

এরপর এক ওভার বিরতি দিয়ে ইংলিশদের পরাজয়ের কফিনে সর্বশেষ পেরেক ঠুকে দিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। স্টিভেন ফিনকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক জয় নিশ্চিত করেন ১৯ বছরের এই তরুণ। ইংল্যান্ড অলআউট ১৬৪ রানে। ঢাকা টেস্টের তৃতীয় দিনেই ১০৮ রানের বিশাল ব্যবধানে ইংল্যান্ডকে প্রথমবারের মতো হারিয়ে দিলো বাংলাদেশ। টেস্ট ক্রিকেটে প্রতিষ্ঠিত কোনো শক্তিকে এই প্রথম হারাতে পারলো বাংলাদেশ।

জয়ের আনন্দ বাংলাদেশ ছাড়িয়ে এখন গোটা বিশ্বে ছাপিয়ে গেছে। বিশ্বের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম এবং গণমাধ্যমে বাংলাদেশের এই জয়ের ইতিহাস ফলাও করে প্রচার করা হচ্ছে।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম বাংলাদেশের জয়ের খবর নিয়ে সংবাদ প্রচার করেছে। ব্রিটেনের প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম ডেইলি মিরর টাইগারদের জয়ের প্রশংসা করে শিরোনাম করেছে, ‘ঢাকায় শোচনীয় ব্যাটিংয়ের পর বাংলাদেশের কাছে ইংল্যান্ডের প্রথম পরাজয়।’

ব্রিটেনের আরেকটি সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়েছে, ‘মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে বিধ্বস্ত ইংলিশ ব্যাটিং লাইনআপ : প্রথমবারের মত বাংলাদেশের কাছে ইংল্যান্ডের পরাজয়।’

বিবিসি বাংলার খবরেও গুরুত্ব সহকারে এসেছে সংবাদটি। সেখানে বলা হয়েছে, ‘মিরাজ ও সাকিবের দুর্দান্ত বোলিংয়ে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে টেস্ট সিরিজ ড্র করলো বাংলাদেশ।’

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, ‘মেহেদী হাসানই শেষ করে দিলেন ইংল্যান্ডকে : বাংলাদেশ পেলো ঐতিহাসিক এক জয়।’ ভারতের আরেক পত্রিকা আনন্দবাজার বলেছে, ‘চট্টগ্রামের বদলা ঢাকায়! মিরাজ, সাকিব গুঁড়িয়ে দিল ইংল্যান্ডকে।’ কলকাতা২৪/৭ বাংলাদেশের ভূয়সী প্রশংসা করে টেস্ট জয়ের শিরোনাম করেছে, ‘মেহেদি হাসানের জন্য আজ গর্বের দীপাবলি বাংলাদেশেও!’

স্কাই স্পোর্টসের খবরে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশের ঐতিহাসিক জয়।’