মেইন ম্যেনু

টাইটানিকের জং ধরা লকারের চাবি বিক্রি হল অবিশ্বাস্য দামে

জলের অতলে পড়ে থাকা ‘রোজ’-এর বহুমূল্য হীরের নেকলেস-টা হয়তো লেখকের কল্পনার বুনন। তবে এ কথা তো অস্বীকার করার উপায় নেই যে আজ থেকে ১০৪ বছর আগে পৃথিবীর তৎকালীন বৃহত্তম জাহাজটি যখন বহু যাত্রীসহ জলের গভীরে তলিয়েছিল, তখন হারিয়েছিল বহু জিনিসই। আজ শতাধিক বছর পরেও হয়তো সেগুলি একই ভাবে সমুদ্রের নিরাপদ আশ্রয়ে রয়ে গিয়েছে। অর্থের বিচারে জিনিসগুলি হয়তো নেহাতই মামুলি ছিল সেই সময়। তবে এখন তার মধ্যে থেকে যদি হঠাৎ কিছু উদ্ধার হয় এবং তার সঙ্গে টাইটানিকের যোগসূত্র রয়েছে বলে প্রমাণিত হয়, তার দাম আকাশছোঁয়া হবে, সে বিষয়ে সন্দেহ নেই।

একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, সম্প্রতি এমনই এক জিনিস নিলামে বিক্রি হয়েছে বহুমূল্যে, যার সঙ্গে টাইটানিকের যোগসূত্র রয়েছে। বস্তুটি হল একটি মরচে পড়া লকারের চাবি। তার মালিক ছিলেন ইংল্যান্ডের সিডনি সেডনারি, যিনি ছিলেন টাইটানিকের তৃতীয় শ্রেণির একজন স্টিউয়ার্ড। হতভাগ্য ১৫০০ যাত্রীর মধ্যে সেডনারিও একজন, যিনি ওই রাতে মারা গিয়েছিলেন। তাঁর দেহের সঙ্গেই উদ্ধার হয়েছিল চাবিটি, যাতে লেখা ছিল ‘Locker 14 F Deck’। উদ্ধার হওয়া চাবিটি পাঠানো হয়েছিল সেডনারির পরিবারে, তাঁর বিধবা স্ত্রী-এর কাছে। এতকাল সেটি তাঁর পরিবারে রইলেও সদ্য চাবিটি উইল্টশায়ারে আয়োজিত একটি নিলামে বিক্রি করা হয়েছে ৮৫ হাজার পাউন্ডে অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৭০ লক্ষ টাকা। এছাড়াও টাইটানিক থেকে উদ্ধার হওয়া বহু জিনিসই বিক্রি হয়েছে নিলামে।

টাইটানিক মুখ্য ওয়্যারলেস অফিসারের লেখা একটি পোস্টকার্ড বিক্রি হয়েছে ১৯,০০০ টাকায় এবং জাহাজের সেকেন্ড অফিসারের নিজে হাতে লেখা একটি চিঠি বিক্রি হয়েছে ৩৪,০০০ পাউন্ডে।