মেইন ম্যেনু

ট্রাম্পপত্নীর প্রশংসা করে মিশেলকে ‘বনমানুষ’ সম্বোধন

malania_trump_and_michelle-obama_30769_1479192089

যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেনালিয়ার প্রশংসা করতে গিয়ে বর্তমান ফার্স্টলেডি মিশেল ওবামাকে ‘বনমানুষ’ বলে আক্রমণ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমুল সমালোচনার মুখে পশ্চিম ভার্জিনিয়ার ক্লে কাউন্টি ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশনের সভাপতি পামেলা রামসে এবং ক্লের মেয়র বেভার্লি ওয়েলিং তোপের মুখে পড়েছেন।

গত ৮ নভেম্বর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পরে ট্রাম্প দম্পতিকে হোয়াইটহাউজে আমন্ত্রণ জানান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

হোয়াইট হাউজে ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়ার আগমণের পর টুইটারে পামেলা রামসে মন্তব্য করেন, ‘অনেকদিন বাদে হোয়াইট হাউসে সুন্দরী, ব্যক্তিত্ববান ফার্স্টলেডি দেখে ভাল লাগল।’

কিন্তু মেলানিয়ার প্রশংসা করতে গিয়ে বর্তমান ফার্স্টলেডি মিশেল ওবামাকে আক্রমণ করে বসেন পামেলা। তিনি লেখেন, ‘এতদিন ধরে হিল পরা এক বনমানুষ দেখে তিনি ক্লান্ত। ‘

এদিকে পামেলার বিদ্বেষপূর্ণ টুইটকে প্রশংসা করেন ক্লের মেয়র বেভার্লি ওয়েলিং। তিনি বলেন, ‘তুমি আমার দিনটা স্বার্থক করে দিলে পামেলা’।

মিশেল ওবামাকে কটাক্ষ করে এই মন্তব্য করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র সমালোচনার ঝড় ওঠে। সমালোচনার মুখে পামেলা এবং বেভার্লি তাদের মন্তব্য মুছে ফেলেন।

এক পর্যায়ে তারা বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য ক্ষমাও চান। কিন্তু বিক্ষুব্ধরা তাদের ক্ষমা গ্রহণ করেননি। বরং দু’জনের বরখাস্ত চেয়ে ১৪ হাজারেরও বেশি মানুষ আবেদন করেছেন।

পরিস্থিতি সামলাতে ক্লে কাউন্টি ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন থেকে পামেলা রামসেকে এবং ক্লের মেয়র পদ থেকে বেভার্লি ওয়েলিংকে তাদের পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছে।

এছাড়াও মার্কিন প্রশাসন ওই দুই নারীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে তাদের মন্তব্যের বর্ণবিদ্বেষের মাত্রা খতিয়ে দেখছে বলে সংবাদ মাধ্যমের খবর।