মেইন ম্যেনু

ট্রাম্পবিরোধী বিক্ষোভ অব্যাহত

প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মেনে না নিয়ে দ্বিতীয় দিনের মতো রাজপথে বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছেন মার্কিনিরা। খবর রয়টার্সের।

ট্রাম্পবিরোধীরা বলছেন, নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থীর জয়জয়কার নাগরিক অধিকারের প্রতি এক বড় আঘাত।

দেশটির পূর্বাঞ্চলে বিক্ষোভকারীরা ওয়াশিংটন, বাল্টিমোর, ফিলাডেলফিয়া এবং নিউইয়র্কে প্রতিবাদ অব্যাহত রেখেছেন।

আর পশ্চিমাঞ্চলের প্রতিবাদকারীরা লস অ্যাঞ্জেলেস, স্যান ফ্র্যান্সিসকো, অকল্যান্ড, ক্যালিফোর্নিয়া মিলিত হচ্ছেন।

অন্যদিকে ডেনভারে হাজারো লোকের ট্রাম্পবিরোধী র‌্যালি ছিল নির্বাচন পরবর্তী সময়ে সবচেয়ে বড় কর্মসূচি।

তবে বৃহস্পতিবারের কর্মসূচির তীব্রতা বুধবারের চেয়ে কম ছিল। উপস্থিতিও ছিল কম। তবে প্রতিবাদ কর্মসূচিতে কিশোর ও যুবকদের উপস্থিতি বেশি ছিল।

বিক্ষোভকারীদের অনেকের হাতে ‘কোনো ঘৃণা নয়, কোনো ভয় নয়, অভিবাসীদের যুক্তরাষ্ট্রে স্বাগতম’ এবং ‘ট্রাম্পের অপসারণ চাই’ লেখা ব্যানার-ফেস্টুন দেখা গেছে।

বিক্ষোভের মুখে ট্রাম্পের সবচেয়ে বড় স্থাপনা ওয়াশিংটনের ম্যানহাটন হোটেল এবং ট্রাম্পের আবাসস্থল ট্রাম্প টাওয়ারের বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার ওবামা-ট্রাম্প বৈঠকের পর একদল বিক্ষোভকারী হোয়াইটহাউসের সামনে থেকে ট্রাম্প হোটেল পর্যন্ত র‌্যালি করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

ভার্জিনিয়ায় বিক্ষোভকারীদের একজন তরুণ জো ডেনিয়েল বলেন, ‘একজন ধর্মান্ধ এবং ঘৃণিত ব্যক্তিকে আমি কোনোভাবেই প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নিতে পারছি না। এটা আমার জন্য খুবই বেদনাদায়ক।’

এদিকে প্রচারণাকালে ট্রাম্পের দেয়া বক্তব্যে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী, নারী, মুসলিম ও অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর সন্ত্রাস বেড়ে যাওয়ার আশংকা করছেন বিক্ষোভকারীরা।

তাদের মতে, এ ধরনের যে কোনো ঘটনা ঘটলে তার জন্য ট্রাম্পই দায়ী থাকবেন।