মেইন ম্যেনু

ট্রাম্পের জয়ের সম্ভবনায় বিশ্ব পুঁজিবাজারে পতন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ব্যাটেলগ্রাউন্ড হিসেবে চিহ্নিত প্রায় সবগুলো রাজ্যে এগিয়ে থাকা ট্রাম্পের হোয়াইট হাউজে যাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বিশ্বের প্রধান প্রধান আর্থিক বাজারগুলোতে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে।

এশিয়ার শেয়ারবাজারগুলোতে বড় ধরনের পতন হয়েছে। শতকরা হিসেবে এটা দুই শতাংশের ওবশি। যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান শেয়ারবাজার ডাউ জোন্সও প্রথম আধা ঘণ্টায় সূচক হারিয়েছে ৬০০ পয়েন্ট।

নতুন সরকার আসলে সেই সরকারের নীতি কী হয়, সে নিয়ে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে সব সময় সংশয় থাকে। তবে ট্রাম্পকে এখনও নিশ্চিতভাবে বিজয়ী বলা যায় না। যদিও ইলেকট্রোরাল ভোটে এখনও তিনি এগিয়ে আছেন। যেসব রাজ্যে এখনও ফলাফল ঘোষণা হয়নি, তার বেশ কয়েকটিতে ট্রাম্প বেশ ভালো ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান প্রধান টেলিভিশনগুলোর বিশ্লেষণে এরই মধ্যে ট্রাম্পকে বিজয়ী হিসেবে বলা হচ্ছে।

ভোটের আগে সবগুলো জরিপে হিলারি এগিয়ে রয়েছেন বলে প্রচার করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান প্রধান গণমাধ্যমগুলো। তবে ভোটের পর পর দুই পক্ষের মধ্যে ব্যবধান খুব বেশি নয় বলে প্রচার করে সংবাদমাধ্যমগুলো। আর ফলাফল ঘোষণার শুরুর কিছুক্ষণ পর থেকে ট্রাম্প এগিয়ে থাকেন সুষ্পষ্ট ব্যবধানেই।

মাঝে একবার হিলারি এগিয়ে গেলেও বিশেষ করে ব্যাটেলগ্রাউন্ডে জয় ট্রাম্পকে আবারও সুবিধাজনক অবস্থানে নিয়ে যায়। বিশেষ করে শেতাঙ্গ ভোটার ও শ্রমজীবী আর গ্রাম এলাকার ভোটাররা ট্রাম্পকে সমর্থন করেছেন বেশি। এর সুবিধা পেয়েছেন তিনি।

ব্যাটেলগ্রাউন্ড হিসেবে পরিচিত ফ্লোরিডা, নর্থ ক্যারোলিনা এবং ওহিওতে জয় পেয়েছেন ট্রাম্প। মিশিগান ও উইসকনসিনেও তিনি এগিয়ে আছেন। মিশিগান, উইসকনসিন ও পেনসিলভানিয়ায় জিতলেই ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হওয়া নিশ্চিত হয়ে যাবে।