মেইন ম্যেনু

ডেন্টালের প্রতি আসনে লড়বেন ৪২ শিক্ষার্থী

ডেন্টাল কলেজে ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এতে আসন প্রতি ৪২ ভর্তিচ্ছু প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন। ডেন্টালে অনলাইনে ভর্তির আবেদনপত্র গ্রহণ শুরু হয় গত ১৫ অক্টোবর। শেষ হয়েছে সোমবার(২৪ অক্টোবর) দিবাগত রাত ১২টায়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. আবদুর রশীদ জাগো নিউজকে জানান, সোমবার পর্যন্ত প্রাপ্ত হিসাব অনুসারে আবেদনকারীর সংখ্যা সাড়ে ২১ হাজার ছিল। শেষ পর্যন্ত তা আরো ২/৩শ’ বৃদ্ধি পেতে পারে।

তিনি বলেন, সরকারি ৯টি ডেন্টাল কলেজ ও ইউনিটে আসন সংখ্যা মাত্র ৫১৩টি। সে হিসাবে প্রতি আসনে ৪২ জন শিক্ষার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবে। তিনি জানান, আগামী ৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য পরীক্ষা সুষ্ঠভাবে গ্রহণের লক্ষ্যে আজ (মঙ্গলবার) দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে ওভারসাইট কমিটির বৈঠক বসছে।

ডিজিটাল প্রযুক্তির পাশাপাশি বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার মতো এবারো বিতর্কহীনভাবে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ সম্ভব হবে বলে তিনি দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

চলতি বছর ডেন্টালের ভর্তি পরীক্ষা ঢাকা ও এর বাইরের মোট ৫টি ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে। ভেন্যুগুলো হলো ঢাকা ডেন্টাল কলেজ, মিরপুর, শহীদ সোহরাওয়ার্দী ডেন্টাল ইউনিট, সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের ডেন্টাল ইউনিট, রাজশাহী ও চট্টগ্রাম ডেন্টাল ইউনিট।

১০০ নম্বরের এমসিকিউ (মাল্টিপল চয়েস কোয়েশ্চেন) প্রশ্নে এক ঘণ্টার পরীক্ষা হবে। জীববিদ্যা ৩০, রসায়ন বিদ্যা ২৫, পদার্থ বিদ্যা ২০, ইংরেজি ১৫, সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশের ইতিহাস ও সংস্কৃতি ৬ ও আন্তর্জাতিক ৪) ২০ নম্বর থাকবে।ভুল উত্তরের জন্য দশমিক ২৫ নম্বর কাটা যাবে।

জানা গেছে, বর্তমানে দেশে সরকারি ৯টি ও ২৮টি বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ ও ইউনিট রয়েছে। এগুলোতে মোট আসন সংখ্যা এক হাজার ৮৩২টি। তন্মধ্যে সরকারি ৫১৭ ও বেসরকারি এক হাজার ৩শ’ ১৫টি।

গত বছর পর্যন্ত সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা স্বাস্থ্য অধিদফতরের অধীনে কেন্দ্রীয়ভাবে একইদিন একই সময় অভিন্ন প্রশ্নপত্রে অনুষ্ঠিত হতো। ফলে বিশেষ করে বেসরকারি ডেন্টালের বিপুল সংখ্যক আসন শূণ্য থাকতো।

এ অবস্থায় ডেন্টাল বিশেষজ্ঞদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় চলতি বছর পৃথকভাবে পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়।