মেইন ম্যেনু

তাভেল্লা হত্যা ইস্যুতে র‌্যাব ডিজির সঙ্গে মনিরুলের দ্বিমত

rab-dg-benjir-and-dmp-monir_28758_1477487648

ইতালীয় নাগরিক তাভেল্লা সিজার হত্যায় নব্য জেএমবি জড়িত- র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদের এমন বক্তব্য নাকচ করে দিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম এর প্রধান মো. মনিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘আমি বিদেশে ছিলাম তাই বিয়ষটি আমার জানা নাই। তবে আমার বিশ্বাস উনি (র‌্যাব ডিজি) এমন কথা বলেননি।’

বুধবার সকালে ডিএমপি’র মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ কালে জয়েন্ট কমিশনার মনিরুল এসব কথা বলেন।

মনিরুল বলেন, তাভেল্লা সিজার হত্যা মামলায় বিএনপি নেতা এম এ কাইয়ুমকে গ্রেফতার করা হবে। তিনি বর্তমানে বিদেশে পলাতক রয়েছেন। দেশে ফিরলেই তাকে গ্রেফতার করা হবে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার কারওয়ানবাজারের বিসিআইসি ভবনে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ দাবি করেন, তাভেল্লা হত্যাসহ ১৮টি নাশকতার ঘটনায় নব্য জেএমবি জড়িত।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব ডিজি জঙ্গিদের বিভিন্ন সাংগঠনিক চিঠি ও নথিপত্র তুলে ধরেন।

ওই সংবাদ সম্মেলনে বেনজির বলেন, গত ২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় গুলশান-২ এর ৯০ নম্বর সড়কে ইতালীয় নাগরিক সিজার তাভেল্লাকে (৫১) গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

পরে পুলিশ এই ঘটনায় ঢাকা মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও সাবেক ওয়ার্ড কমিশনার এমএ কাইয়ুম, তার ভাইসহ সাতজনকে আসামি করে অভিযোগপত্র দিয়েছে।

নব্য জেএমবির গত ৬ অক্টোবরের একটি চিঠির সূত্র ধরে বেনজির জানান, অন্তত ৩০০ সদস্য দিয়ে নব্য জেএমবি গঠিত হলেও বর্তমানে সংগঠনটির ২১ জন সদস্য সক্রিয় রয়েছে। এদের মধ্যে ২ জন সূরা সদস্য, ১৯ জন মিড-লেভেলের। আমাদের চেষ্টা থাকবে তাদের সংখ্যা যেন ২১ থেকে ২২ না হয়। ২১ জনের সাংগঠনিক নাম পাওয়া গেছে। আমরা সেগুলো যাচাই-বাছাই করে তাদেরকে ধরার চেষ্টা করছি।

চিঠিতে লেখা ছিল, ৬ অক্টোবর পর্যন্ত তাদের ৩৩ জন সদস্য ছিল। বাকিরা ‘তাগুত’দের হাতে শহীদ হয়েছে এবং কারাগারে রয়েছে। তাদের ৫টি হ্যান্ডগান, ১টি একে-২২ রাইফেল এবং কিছু সংখ্যক ‘আম’ (গ্রেনেড) রয়েছে।

সেই সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব মহাপরিচালক আরও বলেন, নব্য জেএমবির এই ২১ সদস্যের মধ্যে দু’জন শুরা সদস্য, ১৯ জন মিড-লেভেলের। তাদের সাংগঠনিক নাম পাওয়া গেছে। আমরা সেগুলো যাচাই-বাছাই করছি। আমাদের চেষ্টা থাকবে তাদের সংখ্যা যেন ২১ থেকে ২২ না হয়।

র‌্যাবের অভিযানে একে-২২ এবং হ্যান্ডগানগুলো উদ্ধার হওয়ায় তাদের কাছে বর্তমানে কোনো অস্ত্র নেই বলেও দাবি করেন তিনি।