মেইন ম্যেনু

তামিমের প্রশংসায় মঈন আলী

দলীয় এক রানেই প্রথম উইকেটের পতন। সেখান থেকে মুমিনুল হককে সঙ্গে তামিম ইকবাল গড়েন ১৭০ রানের জুটি। তুলে নেন ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি। ১৪৭ বলে ১২ টি চারের সাহায্যে বাঁ-হাতি এই ওপেনার করেন ১০৪ রান।

ম্যাচ শেষে প্রতিপক্ষ দলের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার মঈন আলীর কণ্ঠে শোনা গেল তামিম-স্তুতি। ইংলিশ এই অলরাউন্ডার জানালেন, দুর্দান্ত ব্যাট করেছে তামিম। শুধু তাই না; তার মতে আগ্রাসী তামিমকে বল করাটা খুবই কঠিন।

বললেন, ‘তামিম দুর্দান্ত ব্যাট করেছে। ও সব অবস্থায় নিজেকে মানিয়ে নিতে পারে। সে আজ সব বোলারকেই খেলেছে। তবে তাকে বল করাটা খুবই কঠিন, কেননা ও সব দিকেই চালিয়ে খেলে। তারপরও কঠিন অবস্থা থেকে আমরা ফিরে এসেছি।’

এদিন বাংলাদেশ মাত্র ৪৯ রানেই হারায় শেষ নয় উইকেট। মঈন আলী একাই তুলে নেন পাঁচ উইকেট। মূলত তার বিধ্বংসী বোলিংয়েই অল্প রানে গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা। দিন শেষে তাই এমন পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট মঈন।

বললেন, ‘পাঁচ উইকেট পেয়ে সত্যিই আমি খুব খুশি। তবে আমি ভিন্ন একটি কারণে খুশি। আজ অনেকগুলো ওভার মেডেন (পাঁচ) করতে পেরেছি; সচরাচর যেগুলো হয় না। টাইট বল করতে চেয়েছি। সেটা করতে পারায় আমি বেশি খুশি। তৃতীয় স্পেলে ভালো বোলিংয়ের ফল পেয়েছি।’

চট্টগ্রাম টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে মঈন আলী পেয়েছিলেন পাঁচ উইকেট। আর ঢাকা টেস্টে প্রথম ইনিংসেই পেলেন পাঁচ উইকেট। সাফল্যের রহস্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আসলে কিভাবে হয়েছে, সেটা নিয়ে আমি নিশ্চিত নই। আমি ধারাবাহিকভাবে এক জায়গায় বোলিং করে যাওয়ার চেষ্টা করেছি, হয়তো এই কারণেই সফল হয়েছি।’