মেইন ম্যেনু

ত্বক ফর্সায় ক্রিম ব্যবহারের আগে ভাবুন

মুখে রঙ ফর্সা করার ক্রিম প্রয়োগ নিত্যদিনের ঘটনা। চটকদার বিজ্ঞাপন আর ফর্সা হওয়ার লোভে প্রতিদিনই আমরা এর প্রয়োগ করছি।

তবে রঙ ফর্সাকারী ক্রিম মাখার আগে একবার সচেতনভাবে ভাববার জন্য ত্বক বিশেষজ্ঞদের আহ্বান ছিল দীর্ঘদিনের।

কারণ ত্বক বিশেষজ্ঞদের মতে, এসব ক্রিমের বেশিরভাগেই স্টেরয়েড মেশানো। এ ধরনের ক্রিমের যথেচ্ছ প্রয়োগে গালে বা মুখে ত্বকের জটিল অসুখ দেখা দিচ্ছে।

কারও মুখ পোড়া দাগে ভরপুর, কেউ রোদে বেরোলেই অসহ্য জ্বালায় অস্থির। কখনও বা হরমোনের গোলমাল হওয়ায় মেয়েদেরও দাড়ি-গোঁফ গজাচ্ছে।

ত্বকরোগ বিশেষজ্ঞ কৌশিক লাহিড়ীর কথায়, ‘রোজ চেম্বারে ১০ জন রোগীর মধ্যে চারজনই মুখে উল্টোপাল্টা ক্রিম মাখার উপসর্গ নিয়ে হাজির হন। কিছু কিছু ক্রিমের টিউবে ‘স্কিন লাইটেনিং’ কথাটাও লেখা থাকে। অনেকেই ফর্সা হতে এসব মাখেন।’

চিকিৎসকদের দাবি, একবার স্টেরয়েড মেশানো ক্রিম মাখা অভ্যেস করলে ত্বকে স্টেরয়েডের নেশা ধরে নেয়। ক্রিম মাখা বন্ধ করলেও জ্বালা-যন্ত্রণা বাড়তে থাকে।

ত্বকরোগ বিশেষজ্ঞ সঞ্জয় ঘোষের কথায়, ‘শুধুমাত্র শ্বেতি, এগজিমার মতো ত্বকের অসুখে স্টেরয়েড মেশানো ক্রিম মুখে বা গায়ে মাখা যেতে পারে। সেটাও ডাক্তারের কথা শুনে অল্প-অল্প করে মাখতে হয়।’

তথ্যসূত্র- আনন্দবাজার