মেইন ম্যেনু

‘দরিদ্রদের তালিকা পাঠান, ঘর করে দেবো’

hasina120161022133912

বাংলাদেশের দরিদ্র ও গৃহহীন মানুষের তালিকা করতে আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত সব জনপ্রতিনিধিকে আহ্বান জানিয়েছেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘তাদের তালিকা পাঠান, ঘর করে দেবো। বাংলাদেশে দরিদ্র বলে কিছু থাকবে না। এটাই আমাদের প্রতিজ্ঞা।’

শনিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের ২০তম সম্মেলনে এসব বলেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আমরা জনগণের জন্য রাজনীতি করি। দারিদ্রতার হার ইতোমধ্যে ২২ দশমিক ৪ ভাগে নামিয়ে এনেছি। এই হার শূন্যের কোটায় নামাবো। বাংলাদেশ দারিদ্রমুক্ত হবে, পুষ্টির অভাব দূর হবে। আমরা শিক্ষার হার বাড়াবো। সুপেয় পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থা উন্নতি করবো। তথ্যপ্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন জাতি গঠন করবো। কর্মক্ষেত্রে নারী-পুরুষের কোনও বৈষম্য থাকবে না। ঘরে-ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া হবে। প্রতি ঘরে আলো জ্বলবে। কর্মসংস্থানের জন্য সুনির্দিষ্ট অঞ্চলে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সড়ক, রেল ও বিমান যোগাযোগ আরও আধুনিকায়ন করা হবে। তৈরি করা হবে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের সেতুবন্ধন। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের কোনও স্থান বাংলাদেশে হবে না। এ জন্য আমরা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছি। বাংলাদেশের ভূখণ্ড ব্যবহার করে কেউ অন্য দেশে সন্ত্রাসবাদ চালাতে পারবে না। আজকের বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবিলা করে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় নিয়ে এসেছি। তাই দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।’

দলীয় সভাপতি বলেন, ‘৭৫-এর ১৫ আগস্টের পর দেশে সামরিকতন্ত্র শুরু হয়। এমন সংগ্রামের পথ পাড়ি দিয়ে ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিল। যত অর্জন হয়েছে, সব আওয়ামী লীগ করেছে। আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে দাবি আদায় করেছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করতে চাই। আর ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে উন্নত দেশ। বাংলাদেশ হবে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের সেতুবন্ধন, তাই আঞ্চলিক যোগাযোগের ওপর গুরুত্ব দিয়েছি।’

সম্মেলনে আগত বিদেশি অতিথিদের অভিননন্দন জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘তারা সম্মেলনে এসে আমাদের সম্মানিত করেছেন।’