মেইন ম্যেনু

দশ টাকার চালের ৬০ হাজার কার্ড বাতিল

সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ টাকা মূল্যের চাল বিতরণে নানা অনিয়মের অভিযোগে রংপুর বিভাগে ৬০ হাজার ৩৫৬টি কার্ড বাতিল করেছে খাদ্য বিভাগ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর আঞ্চলিক খাদ্য কর্মকর্তা আব্দুল্লা আল মামুন সাংবাদিকদের জানান, ৬ জন ডিলারের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। জরিমানা আদায় করা হয়েছে ১ লাখ ১ হাজার ৯২৫ টাকা। এ ছাড়া ১৩ জনের ডিলারশিপ বাতিল করা হয়েছে।

রংপুর বিভাগীয় খাদ্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, দুঃস্থদের মাঝে ১০ টাকা দামে চাল বিতরণের জন্য রংপুর বিভাগের রংপুর, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, নীলফামারী, দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁ ও পঞ্চগড় জেলায় ১ হাজার ৫১৭ জন ডিলার নিয়োগ দেওয়া হয়। এর মধ্যে রংপুর জেলায় ২৫২ জন, গাইবান্ধায় ১৭৯, কুড়িগ্রামে ২৬৮, লালমনিরহাটে ১৩১, নীলফামারীতে ২৫৩, দিনাজপুরে ২৩৪, ঠাকুরগাঁয়ে ১০৮ ও পঞ্চগড় জেলায় ৯২ জন ডিলার নিয়োগ দেয় খাদ্য বিভাগ।

রংপুর খাদ্য বিভাগের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, চাল বিতরণে ডিলাররা বিভিন্ন অনিয়ম করে। তারা ভোক্তাদের কার্ড নিজেদের কাছে রেখে দেয়। চাল আত্মসাত করে, পাচারের উদ্দেশে চাল মজুদ করে, ওজনে কম দেয় এবং কালোবাজারে বিক্রি করে। এ রকম ১৫৫টি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে রংপুরে সর্বাধিক ৭৫টি।

তিনি বলেন, ‘এ অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সেপ্টেম্বর থেকে মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) ভ্রাম্যমাণ আদালত ৮ জনের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করেছেন। ৬ জন ডিলারের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ১৩ জনের ডিলারশিপ বাতিল করা ছাড়াও ৬০ হাজার ৩৫৬টি কার্ড বাতিল করা হয়েছে।’

রংপুর আঞ্চলিক খাদ্য কর্মকর্তা আব্দুল্লা আল মামুন জানান, ১০ টাকা মূল্যের চাল বিতরণে যেখানে ডিলাররা অনিয়ম করবে আমরা তাদের ডিলারশিপ বাতিল করে আইনগত ব্যবস্থা নেব। প্রকৃত দুঃস্থদের চাল না দিলে কেউই রেহাই পাবে না।