মেইন ম্যেনু

দারুণ খুশি হাথুরুসিংহে, জয় নিয়েও আশাবাদী

জিততে হলে প্রয়োজন ৩৩ রান। হাতে আছে দুই উইকেট। চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থদিন শেষে এই সমীকরণ দাঁড়িয়ে আছে বাংলাদেশের সামনে। সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এই ম্যাচে বাংলাদেশ জয় পাবে কি না, তা হয়তো বলা মুশকিল। তবে একটা রোমাঞ্চকর শেষের অপেক্ষায় আছে দুই দল।

অবশ্য স্বাগতিক দলের পারফরম্যান্সে দারুণ খুশি কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। পঞ্চম দিনে ব্যাটসম্যানরা দৃঢ়তা দেখাতে পারলে লক্ষ্যে পৌঁছানো অসম্ভব নয় বলেও মনে করেন তিনি।

রোববার সকালে ২৮৬ রানের লক্ষ্য বাংলাদেশ যখন ব্যাট করতে নেমেছিল, তখন অনেকটা কঠিনই মনে হয়েছিল লক্ষ্যে পৌঁছানো। উইকেটের ধরন এবং অতীত রেকর্ড বলে চতুর্থ ইনিংসে চেজ করে জেতা বাংলাদেশের জন্যই কঠিন বটে। সেই দলটিই ইংল্যান্ডের দুর্দান্ত বোলিং আক্রমণের সামনে দারুণ দৃঢ়তা দেখিয়েছে।

হাথুরুসিংহের মুখে তাই আশার বাণী। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চতুর্থ দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘ইংল্যান্ডের মতো দলের বিপক্ষে এখন পর্যন্ত যা খেলেছে আমাদের ছেলেরা তাতে আমি খুবই খুশি। কাল যদি আমরা ১০ থেকে ১৫ ওভার ব্যাট করতে পারি তাহলে আমরা লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব। তবে আমাদের অনেক হিসেবি ক্রিকেট খেলতে হবে।’

কোচ হাথুরসিংহে আশাবাদী হলেও হাতে আছে মাত্র দুই উইকেট। এর মধ্যে মাত্র একজনই ব্যাটসম্যান আছেন। বাকি দুজনের একজন স্পিনার তাইজুল ইসলাম, অন্যজন পেসার শফিউল ইসলাম।

শেষ দিনে সাব্বিরের অন্যপাশে তাইজুলকে কিছুটা দৃঢ়তা দেখাতে হবে বলে মনে করেন বাংলাদেশ কোচ। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমাদের সামনে এখন সুযোগ আছে ৯০ ওভার ব্যাটিং করার। তবে এই ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে তাইজুলকে। সাব্বিরের অন্যপাশে তাঁকে পিচে আঁকড়ে থাকতে হবে।’