মেইন ম্যেনু

দিনে-দুপুরে প্রকাশ্যে গার্ডেনে চলছে সংঘবদ্ধ চক্রের ব্ল্যাকমেইল ও ছিনতাই (ভিডিও)

exrctvybun

দিনে দুপুরে প্রকাশ্যে মিরপুরের জাতীয় উদ্ভিদ উদ্যান বোট্যানিক্যাল গার্ডেনে চলছে সংঘবদ্ধ চক্রের ব্ল্যাকমেইল ও ছিনতাই। চক্রটি বেড়াতে যাওয়া স্কুল কলেজের ছেলে-মেয়ে বা প্রেমিক-প্রেমিকাকে জিম্মি করে হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, মোবাইল ফোন। তবু লোকলজ্জার ভয়ে কেউই থানায় অভিযোগ করেন না।

প্রিয় মানুষটির সঙ্গে একান্তে সময় কাটাতে বোট্যানিক্যাল গার্ডেনের নির্জন জায়গায় অনেকেই বসেন। আর এ সুযোগ কাজে লাগাচ্ছে এক শ্রেণীর বখাটে। মোবাইল ফোনে যুগলের ঘনিষ্ঠতার ভিডিও করে। তারপর অসামাজিক কাজের দায় চাপিয়ে ওই ভিডিও দেখিয়ে জিম্মি করে কেড়ে নেয় নগদ টাকাসহ সব কিছুই।

বেড়াতে আসা এক নারী বলেন, ‘আমরা বসে আছি। কিছু লোক এসে বিরক্ত করলো, উঠিয়ে দিলো, ধাক্কা দিলো। এরা মোবাইল নিতে চায়, টাকা নিতে চায়, সঙ্গে জিনিসপত্র থাকলে তাও রেখে দিতো। কী আর করা?’

আরেক তরুণী বললেন, ‘এখানে বেড়াতে এলে কিছু লোক ফলো করে। আরো বলে সিনক্রিয়েট করবে। যা থাকে কেড়ে নেয়। এ ধরনের অনেক সমস্যা করে।’

উদ্যানের ভেতরে সক্রিয় আছে সাইবার অপরাধীরাও। দূর থেকে উঁকি দিয়ে ঘনিষ্ঠতার চিত্রধারণ করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়াই এদের কাজ। ঘুরতে আসা স্কুলছাত্রী বলে, ‘আমরা ক্লাস করেই এখানে আসি। তবে প্রতিদিন আসি না, সপ্তাহে দু-একবার ঘুরতে আসি।’

বখাটেদের একজন বললেন, ‘স্কুল-কোচিং ফাঁকি দিয়ে এখানে শিক্ষার্থীরা আড্ডা মারে, তাই আমরা একটু ডিস্টার্ব করি!’

এ বিষয়ে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান মাহমুদ জানালেন, এখানে প্রচুর দর্শক আসেন। তবে এ উদ্যানে দর্শনার্থীর ধারণক্ষমতা বিবেচনা করেই প্রবেশাধিকার দেয়া উচিত।

তবে এমন অপকর্মের বিরুদ্ধে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, দাবি নিরাপত্তা কর্মীদের। এ অবস্থায় নির্জন স্থানে না বসার অনুরোধ জানিয়েছেন তারা। তাছাড়া এমন উপদ্রবে পড়লে টিকিটের গায়ে দেয়া ফোন নম্বরে কল করে সহযোগিতা নেয়ার অনুরোধ কর্তৃপক্ষের।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন