মেইন ম্যেনু

দুই স্ত্রী স্বামীকে কয়দিন করে পাবেন ঠিক করল আদালত

Adalot

হামদু মিয়া দুই বিয়ে করে পড়েছেন বিপাকে। হামদু মিয়ার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় স্ত্রীর অভিযোগ, তিনি তার স্বামীকে কাছে পান না। বিষয়টি শেষ পর্যন্ত আদালত পর্যন্ত গড়ায়। স্বামীকে ঠিকমত কাছে পেতে বিচারকের শরণাপন্ন হন দ্বিতীয় স্ত্রী শাহিনা বেগম (৩২)।
০২ নভেম্বর বুধবার শাহিনা বেগমের আকুতি শুনে ঢাকা মহানগর হাকিম আলমগীর কবির রাজ দুই স্ত্রীর কে কয়দিন হামদু মিয়ার সঙ্গে থাকবেন তা মৌখিকভাবে ঠিক করে দিয়েছেন। এদিন বিচারক হামদু মিয়াকে বলেন, আপনি বড় স্ত্রী রিতার (৩৪) কাছে সপ্তাহে পাঁচদিন থাকবেন এবং ছোট স্ত্রী শাহিনা বেগমের কাছে দুদিন থাকবেন।
বিচারকের এ আদেশের পর ওয়ারী এলাকার বাসিন্দা শাহিনা বেগম বলেন, ‘ও (বড় স্ত্রী) পাঁচদিন কাছে পেলে আমি কেন দুদিন পাবো। সে তো আমারও স্বামী। আমার বয়সই বা কত হয়েছে। তবে দুদিন পেলেও বিচারকের এ রায়ে আমি সন্তুষ্ট।’
তিনি আরো বলেন, ‘আমার স্বামী হামদু (৪৬) দুই বিয়ে করেছে তাতে আমার কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু সে আমার কাছে থাকতে চায় না। সে তার বড় স্ত্রীর কাছে থাকে। এ জন্যই বিচারকের শরণাপন্ন হয়েছি।’
মামলা সূত্রে জানা যায়, শাহিনা বেগম ২০১৫ সালের ২২ এপ্রিল তার স্বামী হামদু ও তার সতিনের বিরুদ্ধে ওয়ারী থানায় একটি মামলা করেন।
মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, তার স্বামী ও সতিন তাকে মারধর করে। মারধরের একপর্যায়ে তারা তার হাতের একটি আঙুল কেটে ফেলেন। সেই সঙ্গে শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতও করেন।
২০১৫ সালের ২০ জুন ওয়ারী থানার উপ-পরিদর্শক মাহমুদুল হাসান আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ওই বছরের ১৬ ডিসেম্বর আদালত তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। মামলাটি বর্তমানে সাক্ষীর পর্যায়ে রয়েছে।
বুধবার মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। এ দিন উভয় পক্ষ আদালতে উপস্থিত হয়। আদালত মামলার পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য আগামী ২৭ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেন। সেই সঙ্গে হামদু মিয়াকে উভয় স্ত্রীর সঙ্গে সময় কাটানোর দিন মৌখিকভাবে ঠিক করে দিয়েছেন বিচারক।